চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শিশুদের নিরাপদ ইন্টারনেট নিশ্চিতে অভিভাবকদের দায়িত্বশীল হওয়ার আহ্বান

অভিভাবকদের উদাসীনতার কারণেই শিশুরা অনলাইনে ক্ষতিকর কনটেন্টের দিকে ঝুঁকে পড়ছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। শিশুদের জন্য ইন্টারনেটের নিরাপদ ব্যবহার নিয়ে বছরজুড়ে কর্মসূচি উদ্বোধন করে তারা বলেছেন, ইন্টারনেটের যথাযথ ব্যবহার সম্পর্কে শিশুদের সচেতন করতে আরও কার্যকর অনলাইন নীতিমালা প্রয়োজন।

ইউনিসেফের গবেষণায় দেখা গেছে, সারা দেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর একটা বড় অংশ ১৮ বছরের নিচে বা শিশু-কিশোর। প্রতিদিন ১ লাখ ৭৫ হাজারের বেশি শিশু প্রথমবারের মতো অনলাইন ব্যবহার করছে।

বিজ্ঞাপন

‘‘এতে ডিজিটাল জগতে প্রবেশের সুবিধা যেমন শিশুদের সম্ভাবনাময় ভবিষ্যৎ তৈরি করছে, ঠিক তেমনি ক্ষতিকর কনটেন্টসহ বিভিন্নভাবে তথ্যের অপব্যবহারের ঝুঁকি সৃষ্টি হচ্ছে। বিষয়গুলো চিহ্নিত করে শিশু-কিশোরদের সুরক্ষা করা জরুরি।’’

এ লক্ষ্যে শিশুদের জন্য নিরাপদ ইন্টারনেট নিশ্চিত করতে যৌথভাবে এক বছরজুড়ে সচেতনতা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে ইউনিসেফ বাংলাদেশ ও ফেসবুক।

বিজ্ঞাপন

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভো থিয়েটারে সেমিনারে ইন্টারনেটের নিরাপদ ব্যবহার নিয়ে নানা দিক তুলে ধরেন ইউনিসেফ বাংলাদেশ এবং ফেসবুকের প্রতিনিধিরা।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, শিশুদের ডিজিটাল দুনিয়ার বিপদ থেকে রক্ষা করতে অভিভাবকদের আরও দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে।

কর্মসূচিতে ১শ টিরও বেশি স্কুলের ১০ হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থী, শিক্ষক এবং অভিভাবক অংশ নেন।

দেখুন নিচের ভিডিও রিপোর্টে: