চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘শিখবো ইন্টারনেট, দেখবো দুনিয়া’ নিয়ে বাংলালিংকের সঙ্গে ফেসবুক

রাজধানীর একটি হোটেলের অস্থায়ী ডিজিটাল মঞ্চে লোকসংগীত গম্ভীরা গেয়ে ইন্টারনেট-ফেসবুক সম্পর্কে নাতিকে প্রাথমিক জ্ঞান দিচ্ছেন নানা।  গান গেয়ে নানা নাতিকে জানান কিভাবে ইন্টারনেট ও ফেসবুক ব্যবহার করতে হয়, ব্যবহার করলে কী উপকার পাওয়া যায়।

গম্ভীরা গাওয়া এই ডিজিটাল নানার মতো বাংলাদেশের সাধারণ মানুষকে ইন্টারনেট-ফেসবুকের ব্যবহার সম্পর্কে জানাতে চায় মোবাইলফোন অপারেটার বাংলালিংক ও বিশ্বের শীর্ষ সামাজিক মাধ্যম ফেসবুক।

বিজ্ঞাপন

দুই প্রতিষ্ঠানের এই যৌথ উদ্যোগের জানান দিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মজার একটি আয়োজন ছিলো এই গম্ভীরা।সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বাংলালিংক ও ফেসবুক যৌথভাবে ‘শিখবো ইন্টারনেট, দেখবো দুনিয়া’ নামের একটি ডিজিটাল প্রশিক্ষণ কর্মসূচি শুরু করেছে। দেশের সাধারণ মানুষের দৈনন্দিন জীবনে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ ও সুফল নিশ্চিত করার মাধ্যমে তাদের ক্ষমতায়নে ভূমিকা রাখতেই দুই প্রতিষ্ঠানের এই যৌথ উদ্যোগ।

বাংলালিংক জানায়, ‘শিখবো ইন্টারনেট, দেখবো দুনিয়া’ কর্মসূচির মাধ্যমে বাংলালিংকের ২০ হাজার খুচরা বিক্রেতা ও ৪ হাজার ৫’শ স্থায়ী প্রমোটারকে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। এই কর্মসূচির মাধ্যমে আগামী ২ বছরে ২০ লাখেরও বেশি বাংলালিংক গ্রাহক ইন্টারনেটের ব্যবহার সম্পর্কে জানার সুযোগ পাবে।

বিজ্ঞাপন

এছাড়াও ফেসবুকের মাধ্যমে বন্ধু ও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সংযোগ স্থাপনসহ ফেসবুক সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা দেয়া হবে এই কর্মসূচির মাধ্যমে। এ উপলক্ষে ১৯ টাকার স্ক্র্যাচ কার্ডের মাধ্যমে বাংলালিংক গ্রাহকরা ৫ দিনের জন্য শুধুমাত্র ফেসবুকের জন্য আনলিমিটেড ডেটা ব্যবহার করতে পারবে।

বাংলালিংকের এই কর্মসূচিতে ফেসবুকের সঙ্গে থাকার কথা জানাতে ভারত থেকে ঢাকায় আসেন ফেসবুকের মোবাইল পার্টনারশিপ-এপিএসি-এর পরিচালক কারান খাড়া।

তিনি বলেন: বর্তমানে ইন্টারনেট আমাদের জীবনের একটি মৌলিক চাহিদায় পরিণত হয়েছে। বিভিন্ন ডিজিটাল সেবা ব্যবহারের সুযোগ দেওয়ার মাধ্যমে সম্ভাবনার এক নতুন বিশ্ব উন্মোচন করতে পারে। এ উদ্যোগ ডিজিটাল শিক্ষাকে দেশের অনেক মানুষের কাছে পৌঁছে দেবে এবং তাদের ক্ষমতায়নের অবদান রাখতে পারবে।

কর্মসূচি সম্পর্কে বাংলালিংকের কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তাইমুর রহমান বলেন: ইন্টারনেটের শক্তিকে কাজে লাগাতে পারলে দেশ এগিয়ে যাবে। আগে কৃষিপণ্যে যেখানে মধ্যস্বত্ত্বভোগীদের ব্যাপক প্রভাব ছিলো, এখন ইন্টারনেট ও সামাজিক মাধ্যমের অগ্রসরতায় এই মধ্যস্বসত্ত্বভোগীরা কমে যাচ্ছে। দেশের প্রবৃদ্ধিতে ইন্টারনেট-সামাজিক মাধ্যম ভূমিকা রাখছে। আরও প্রবৃদ্ধির জন্য আরও বেশি মানুষকে ইন্টারনেট ও সামাজিক মাধ্যমের আওতাভূক্ত করতেই আমাদের এই উদ্যোগ।

বাংলালিংকের চিফ সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং অফিসার রিতেশ কুমার সিং বলেন: গ্রাহকের ডিজিটাল ক্ষমতায়নের জন্য ফেসবুকের মতো বিশ্বখ্যাত প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করতে পারা গর্বের। আমরা বিশ্বাস করি ফেসবুকের সঙ্গে আমাদের যৌথ উদ্যোগ দেশের প্রতিটি প্রান্তে ডিজিটাল সুবিধা নিশ্চিত করার লক্ষ্য বাস্তবায়নে আমাদের আরও একধাপ এগিয়ে নেবে।

 

Bellow Post-Green View