চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শান্তিতে নোবেল: বাংলাদেশি মার্কিন গবেষক ও তার প্রতিষ্ঠান মনোনীত

এবছর শান্তিতে নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন বাংলাদেশি-মার্কিনি গবেষক ড. রুহুল আবিদ ও তার অলাভজনক প্রতিষ্ঠান হেলথ অ্যান্ড এডুকেশন ফর অল (হায়েফা)।

যুক্তরাষ্ট্রের ব্রাউন ইউনিভার্সিটির আলপার্ট মেডিক্যাল স্কুলের অধ্যাপক তিনি।

বিজ্ঞাপন

ম্যাসাচুসেটস বোস্টন ইউনিভার্সিটির নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জিন-ফিলিপ বেলিউ জানান, ইউনিভার্সিটি অব ম্যাসাচুসেটস বোস্টন তাকে মনোনয়ন দিয়েছে। ২০২০ সালের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত ২১১ ব্যক্তির মধ্যে একজন তিনি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে নিজের পড়াশোনা শেষে জাপানের নাগোয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মলিকুলার বায়োলজি ও জৈব রসায়নে পিএইচডি অর্জন করেন ড. আবিদ। এরপর তিনি ২০০১ সালে হার্ভার্ড মেডিক্যাল স্কুল থেকে ফেলোশিপ সম্পন্ন করেন। ব্রাউন গ্লোবাল গেলথ ইনিশিয়েটিভের তিনি একজন এক্সিকিউটিভ ফ্যাকাল্টি মেম্বারও।

তার অলাভজনক সংস্থা হায়েফা সুবিধাবঞ্চিতদের বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দেয়ার কাজ করছে। গত তিন বছরে বাংলাদেশের প্রায় ৩০ হাজার পোশাক শ্রমিককে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। প্রায় ৯ হাজার সুবিধাবঞ্চিত নারী ও পোশাক শ্রমিকের জরায়ু ক্যানসার স্ক্রিনিং করেছে এবং চিকিৎসা দিয়েছে। বর্তমানে তারা রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে করোনা সংক্রমণরোধে দক্ষতার প্রশিক্ষণ দিচ্ছে।

২০১৩ সালে সাভারে রানা প্লাজা ধসের পর সারাদেশে তৈরি পোশাক শ্রমিকদের স্বাস্থ্যসেবা দিতে হায়েফা প্রতিষ্ঠা করেন ড. আবিদ। সে সময় হার্ভার্ড মেডিক্যাল স্কুলের ডা. রোজমেরি দুদার সঙ্গে বাংলাদেশের গাজীপুর, ঢাকা ও শ্রীপুরের তিনটি গার্মেন্টস কারখানাতে শ্রমিকদের বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দেয় হায়েফা।

এর আগে ২০০৬ সালে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন ড. মুহাম্মদ ইউনূস ও গ্রামীণ ব্যাংক।