চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শাজাহান খানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার ইঙ্গিত কাদেরের

মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নের বিরোধিতা করা এবং নৌকার বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় সাবেক নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খানের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে পারে ইঙ্গিত দিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন: ‘এ বিষয়ে আমরা আমাদের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেবো।’

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার কাউলায় এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কার্যক্রম পরিদর্শনে গিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন: ‘নেক্সট ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত আসবে। আমরা খুব দ্রুত ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক করবো। আমাদের কাছে রিপোর্ট আছে। রিপোর্টের ভিত্তিতে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মাদারীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন সাবেক নৌমন্ত্রী শাজাহান খান। তিনি দলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে গিয়ে নিজের ছোট ভাই ওবাইদুর রহমান কালু খানের পক্ষে আনারস প্রতীকের ক্যাম্পেইনে অংশ নিচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন

উপজেলা নির্বাচন নিয়ে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম এবং সরকারের সাবেক মন্ত্রী শাজাহান খানের সাথে মতভেদ দেখা দিয়েছে। এ উপজেলায় নৌকায় মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে।

এ সময় দুই মামলায় খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়েও কথা বলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক। বলেন:
‘খালেদা জিয়ার মুক্তি পাওয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণ আদালতের। তার জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পথে যে অন্তরায়গুলো আছে তার মধ্যে দুটি মামলায় তিনি জামিন পেলেন। কিন্তু মামলা তো অনেকগুলি রয়ে গেছে। সকল মামলায় জামিন পেলেন তিনি মুক্তি পাবেন। সরকার তো তাকে কারাগারে বন্দী রাখতে পারে না।’

বগুড়া-৬ সংসদীয় আসনে উপ-নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারে আপত্তি জানিয়েছে বিএনপি। তাদের অভিযোগ, কারচুপি করতেই ইভিএম।

এমন অভিযোগের জবাবে কাদের বলেন: ‘অতীতে দেখা গেছে ইভিএম যেখানেই ব্যবহার করা হয়েছে বিরোধী দল সেখানেই ভালো করেছে। ইভিএম নিয়ে সন্দেহ করার কোন কারণ নেই। অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হবে। বিএনপি প্রার্থীর অবস্থান ভালো থাকলে কেউ তাকে জয় থেকে বঞ্চিত করতে পারবে না। জনগণ যে রায় দেবে সে রায় অনুযায়ী যে নির্বাচিত হবে। তাকে কেউ আটকে রাখতে পারবে না।’

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শপথ গ্রহণ না করায় বগুড়া-৬ সংসদীয় আসন শূন্য ঘোষণা করে নিবাচন কমিশন। আগামী ২৪ জন সেখানে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।