চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শরীয়তপুরের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটকে তলব

একটি হত্যা মামলার তিন আসামির ‘একই সময়’ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি কিভাবে নিয়েছেন, সে বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে শরীয়তপুরের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীনকে তলব করেছে হাইকোর্ট।

আগামী ২৯ মার্চ তাকে আদালতে এসে এ ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে।

মামলার দুই আসামির জামিন শুনানিতে রোববার বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেয়।

বিজ্ঞাপন

আদালতে জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী সাব্বির হামজা চৌধুরী ও রেজাউল করিম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন (বাপ্পী)।

২০১৮ সালের ৫ জুলাই ভ্যান চালক খলিল ফকির হত্যার অভিযোগে দুই জনকে আসামি করে শরীয়তপুরের জাজিরা থানায় মামলা করা হয়। পরে এ মামলার অভিযোগপত্রে রুবেল চৌকিদার, লিটন সানি ও আলী হোসেন বেপারিকে অন্তর্ভূক্ত করার পর ১৯ জুলাই এই তিন আসামিরই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেন শরীয়তপুরের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীন। পরবর্তীতে আসামী লিটন সানি ও মো. আলী হোসেন বেপারি জামিন চেয়ে হাই কোর্টে আবেদন করেন। ওই জামিন আবেদনের শুনানিতে ধরা পড়ে একই সমেয় তিন আসামির জবানবন্দি নেওয়ার বিষয়টি।

এবিষয়ে আইনজীবী রেজাউল করিম সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিষয়টি নজরে আসলে আদালত শরীয়তপুরের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীনকে তলব করেন। একই সঙ্গে দুই আসামি সানি ও মো. আলী হোসেন বেপারিকে ৬ মাসের জামিন দিয়েছে।’

বিজ্ঞাপন