চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Group

শনাক্ত কমলেও মৃত্যু বেড়েছে

করোনাভাইরাস

Nagod
Bkash July

দেশে কোভিড-১৯ সংক্রমণের ৬৭৯তম দিনে শেষ ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮ হাজার ১৩৬ জন।

এই সময়ে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আরও তিন হাজার ৪৪৭ জন। শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৩৫ শতাংশ। আগের দিন শুক্রবার শনাক্ত হয়েছিল চার হাজার ৩৭৮ জন। এখন পর্যন্ত মোট শনাক্ত হয়েছেন ১৬ লাখ ১২ হাজার ৪৮৯ জন।

এর আগে গত ৯ ডিসেম্বর দ্বিতীয়বারের মতো এবং গত ২০ নভেম্বর দেশে প্রথমবারের মতো করোনায় মৃত্যুহীন দিন দেখে বাংলাদেশ। গত ৫ আগস্ট দেশে সর্বোচ্চ ২৬৪ জন রোগী মারা যায়। গত ২৮ জুলাই সর্বোচ্চ শনাক্ত হয় ১৬ হাজার ২৩০ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবীরের সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‍শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় (অ্যান্টিজেন টেস্টসহ) ২৪ হাজার ২৮টি পরীক্ষায় তিন হাজার ৪৪৭ জন এই ভাইরাসে শনাক্ত হয়েছেন। এই সময়ে পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৩৫ শতাংশ। তবে শুরু থেকে মোট পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬৩ শতাংশ।

সরকারি ব্যবস্থাপনায় এখন পর্যন্ত ৮১ লাখ ৪৯ হাজার ৯১১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ৩৬ লাখ ৮২ হাজার ২০৯টি নমুনা। অর্থাৎ মোট পরীক্ষা করা হয়েছে এক কোটি ১৮ লাখ ৩২ হাজার ১২০টি নমুনা। এর মধ্যে শনাক্ত হয়েছেন ১৬ লাখ ১২ হাজার ৪৮৯ জন। তাদের মধ্যে ২৪ ঘণ্টায় ২৯৪ জনসহ মোট ১৫ লাখ ৫২ হাজার ৬০০ জন সুস্থ হয়েছেন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৬ দশমিক ২৯ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত সাতজনের মধ্যে চারজন পুরুষ ও তিনজন নারী। তাদের হাসপাতালে (সরকারি চার, বেসরকারি তিন) মৃত্যু হয়েছে। তারা সহ মৃতের মোট সংখ্যা ২৮ হাজার ১৩৬ জন। মোট শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৭৪ শতাংশ।

এখন পর্যন্ত সরকারি হাসপাতালে মারা গিয়েছেন ২৩ হাজার ৯১০ জন, যার শতকরা হার ৮৪ দশমিক ৯৮ শতাংশ। বেসরকারি হাসপাতালে মারা গিয়েছেন তিন হাজার ৪১৫ জন, যার শতকরা হার ১২ দশমিক ১৪ শতাংশ। বাসায় ৭৭৭ জন মারা গিয়েছেন, যার শতকরা হার দুই দশমিক ৭৬। এছাড়াও মৃত অবস্থায় হাসপাতালে এসেছেন ৩৪ জন, যার শতকরা হার দশমিক ১২ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, এখন পর্যন্ত ১৭ হাজার ৯৮৯ জন পুরুষ মারা গেছেন যা মোট মৃত্যুর ৬৩ দশমিক ৯৪ শতাংশ এবং ১০ হাজার ১৪৭ জন নারী মৃত্যুবরণ করেছেন যা মোট মৃত্যুর ৩৬ দশমিক ছয় শতাংশ।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত সাতজনের মধ্যে চল্লিশোর্ধ্ব একজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব একজন, ষাটোর্ধ্ব তিনজন ও সত্তরঊর্ধ্ব দু’জন।আর বিভাগওয়ারী হিসাবে ঢাকা বিভাগে চারজন, বরিশাল বিভাগে একজন ও সিলেট বিভাগে দু’জন।

ওয়ার্ল্ডোমিটারসের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত ৩২ কোটি ৪৫ লাখের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। অন্যদিকে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৫৫ লাখ ৪৯ হাজারের বেশি মানুষ। তবে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ২৬ কোটি ৫৪ লাখের বেশি।

BSH
Bellow Post-Green View
Bkash Cash Back