চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শতাধিক নারী যোদ্ধাকে জোর করে গর্ভপাতকারী নার্স গ্রেফতার

কলম্বিয়ার সবচেয়ে বড় বিদ্রোহী গোষ্ঠী ফার্কের নারী যোদ্ধাদের জোর করে ১শ’টিরও বেশি গর্ভপাত ঘটানোর অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছে হেক্টর আরবোলেদা আলবেইদিস বুইত্রাগো নামের এক ব্যক্তি। স্পেন থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

হেক্টর এর আগে মাদ্রিদে নার্সের চাকরি করতো বলে জানায় স্পেন কর্তৃপক্ষ। তাকে দেশে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু করেছে কলম্বিয়া।

বিজ্ঞাপন

গত শুক্রবার কলম্বিয়া ঘোষণা দেয়, সাবেক ফার্ক নারী যোদ্ধাদের মধ্যে কমপক্ষে দেড়শোজন অভিযোগ করেছে কর্মরত থাকার সময় ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাদের গর্ভপাত ঘটানো হয়েছে। অভিযোগগুলোর বিষয়ে তদন্ত চলছে বলে ওই ঘোষণায় জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন

ওই তদন্তেই বেরিয়ে আসে হেক্টরের নাম। তাকে ‘নার্স’ নামেই জানতো সবাই। ওই দেড়শো গর্ভপাতের ঘটনার বেশিরভাগই তার ঘটানো বলে অভিযোগ রয়েছে।

কলম্বিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল এডুয়ার্ডো মন্টেলেগ্রে সাংবাদিকদের জানান, ফার্ক নারী যোদ্ধারা গর্ভধারণ করলে যুদ্ধ করার মতো শারীরিক অবস্থায় থাকবে না। তাই গর্ভপাত করাতে তাদের বাধ্য করা হতো। তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে প্রমাণ রয়েছে, জোরপূর্বক গর্ভপাত ফার্কের নীতির অংশ ছিলো যেনো যুদ্ধের গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ দলের নারী যোদ্ধাদের হারাতে না হয়।’

অবশ্য বামপন্থী দলটি বরাবরই এ অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছে। তাদের বক্তব্য হলো, বিভিন্ন জন্মনিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা সহজলভ্য। সুতরাং জোরপূর্বক গর্ভপাতের প্রয়োজনই হয় না।

তবে ফার্ক ছেড়ে আশা আসা এক নারী যোদ্ধা বিবিসিকে জানান, তাকে পর পর ৫বার গর্ভপাত ঘটাতে বাধ্য করা হয়েছে। তিনি বলেন, দলটিতে নারীদের রাখার উদ্দেশ্যই হলো যুদ্ধ করা এবং পুরুষ যোদ্ধাদের সঙ্গ দেয়া। এদের মধ্যে যাদের সন্তান জন্ম দেয়ার অনুমতি দেয়া হতো তারা নিজেদের ভাগ্যবান মনে করতো।

Bellow Post-Green View