চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

লেভান্তের বিপক্ষে রিয়ালের শুকনো হাসি

রিয়াল ৩-লেভান্তে ২

প্রথমার্ধেই ৩ গোলে এগিয়ে রিয়াল মাদ্রিদ। ম্যাচ শেষে ব্যবধান বেড়ে কততে দাঁড়ায় সেটাই ছিল দেখার অপেক্ষা। কিন্তু লেভান্তে ঘুরে দাঁড়ালো পরের অর্ধেই। দুই গোল শোধ দিয়ে জমিয়ে তুলল ম্যাচও। হাড্ডাহাড্ডি এক লড়াইয়ের পর শেষ পর্যন্ত স্বস্তির এক জয় পেল জিনেদিন জিদানের দল। লস ব্লাঙ্কোসরা জিতল ৩-২ গোলে।

নিজ মাঠ সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে শনিবার লেভান্তের বিপক্ষে ঘাম ঝরানো জয়ে স্বাগতিকদের প্রথম গোলটি এসেছে করিম বেনজেমার সঙ্গে দানি কারভাহালের বোঝাপড়ায়। লেভান্তের রক্ষণের ডানপ্রান্ত ধরে দৌড়ে সতীর্থকে উড়িয়ে বল দিয়েছিলেন পর্তুগিজ ডিফেন্ডার। তা থেকে হেডে ২৫ মিনিটে গোল করতে ভুল করেননি ফরাসি ফরোয়ার্ড।

বিজ্ঞাপন

ছয় মিনিট বাদে দ্বিতীয়বারের মতো গোল খাতায় নাম লেখান বেনজেমা। লেভান্তে ডি-বক্সের বাইরে বুকে বল রিসিভ করে তার দিকে বাড়িয়ে দেন হামেস রদ্রিগেজ। চতুর বেনজেমা ভুল করেননি। প্রতিপক্ষ গোলরক্ষকের পায়ের ফাঁক দিয়ে বল জড়িয়ে দেন জালে।

বিজ্ঞাপন

৪০ মিনিটে স্বাগতিকদের তৃতীয় গোলটি এসেছে কাসেমিরোর পা থেকে। স্বদেশি সতীর্থ ভিনিসিয়াসের দারুণ এক পাস হাতছাড়া করেননি এই ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার।

দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেয় লেভান্তে। ৪৯ মিনিটে উদযাপনবিহীন এক গোল শোধ দেন রিয়ালেরই সাবেক খেলোয়াড় বোরজা মায়োরাল। ৬০ মিনিটে কাসেমিরোকে উঠিয়ে নেন কোচ জিদান। তার বদলি হিসেবে লা লিগায় প্রথমবারের মাঠে নামেন রিয়ালের নতুন ফরোয়ার্ড এডেন হ্যাজার্ড।

কিন্তু তাতে গোল তো আসেইনি, বরং ৭৫ মিনিটে স্পটকিক থেকে মেলেরোর হেডে আরেক গোল শোধ দিলে স্বাগতিক সমর্থকরা কেঁপে উঠেন অজানা শঙ্কায়।

গোলরক্ষক থিবো কোর্তোয়া দেয়াল হয়ে না দাঁড়ালে পয়েন্ট হারাতেই বসেছিল রিয়াল। খেলার অতিরিক্ত সময়ে প্রতিপক্ষের দারুণ এক হেড ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দলকে বাঁচান বেলজিয়ান গোলরক্ষক।

Bellow Post-Green View