চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

লিখন ও রিশাদকে না খেলানোয় কোচদের বিসিবিতে তলব

নির্বাচকদের পক্ষ থেকে অনুরোধ ছিল জাতীয় লিগে যেন লেগস্পিনার খেলানো হয়। কোচদের প্রতি বিসিবির পক্ষ থেকে পাঠানো হয়েছিল এমন বার্তা। সেটি আমলে নেয়নি রংপুর ও ঢাকা বিভাগের টিম ম্যানেজমেন্ট। কারণ জানতে তাই দুই দলের কোচকে বিসিবিতে ডেকে পাঠানো হয়েছে।

ঢাকা বিভাগের লেগস্পিনার জুবায়ের হোসেন লিখন ও রংপুরের লেগস্পিনার রিশাদ হোসেনকে জাতীয় লিগের চলতি আসরে দুই ম্যাচে রাখা হয়েছে একাদশের বাইরে। যে কারণে কোচদের উপর খেপেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শুরু হওয়া ঢাকা-রংপুর ম্যাচে রিশাদ ও লিখনের নাম একাদশে না দেখে হতাশ হয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

‘আমরা আমাদের কিছু খেলোয়াড়কে খেলাতে চাই, যেটি হচ্ছে না। দেখুন এবার এনসিএল হচ্ছে, এতকিছু বলার পরেও, আসলে সমস্যা যে কেনো হয় এটা তো বলা মুশকিল। এখনো দেখেন আমরা লেগস্পিনার নিয়ে এত কথা বলছি, এনসিএলে লেগস্পিনার রিশাদকে এখনো খেলানো হয়নি। লিখনকেও খেলানো হয়নি। আমরা এতকিছু বলার পরেও, আসলে দল নির্বাচনের ক্ষেত্রে যখন সেরা একাদশ নামাচ্ছে, আমরা তো বলেছি, আমি তো নিশ্চিত ছিলাম যে আজকে নামবে। আজকে দেখছি নামেনি।’

‘এখানে তাহলে কি করণীয়। এই নিয়ন্ত্রণটি আমাদের হাতে নেই। আমরা আপাতত যেটা করেছি সেটা হল, এনসিএলে কেনো খেলায়নি এর জন্য দুই কোচকে তলব করা হয়েছে আজকে। বলার পরেও কেনো খেলানো হল না। ওদের তো খেলাতে হবে, না খেলালে ওরা আসবে কি করে। এটি একটি কমন ট্রেন্ড হয়ে গেছে যে লেগস্পিনারদের আমরা খেলার সুযোগ করে দিচ্ছি না।’

স্বীকৃত লেগস্পিনারদের প্রায় সবাইকে জাতীয় লিগের মূল স্কোয়াডে জায়গা করে দিয়েছেন নির্বাচকরা। চট্টগ্রামের হয়ে প্রথম দুই ম্যাচেই খেলার সুযোগ পেয়েছেন লেগস্পিনার মিনহাজুল আবেদীন আফ্রিদি। আর ঢাকা মেট্রো দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলাচ্ছে চোট কাটিয়ে ফেরা জাতীয় দলের লেগস্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে। আর রংপুরের হয়ে খেলছেন তানবীর হায়দার।

Bellow Post-Green View