চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

লক্ষ্মীপুরে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা

লক্ষ্মীপুরে ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীর মেয়ে স্কুল ছাত্রী হিরামনি বেগম (১৪) কে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। সদর উপজেলার গোপিনাথপুর এলাকায় নবম শ্রেণির এই স্কুলছাত্রীকে বাড়িতে একা পেয়ে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়। নিহত স্কুলছাত্রীর মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। এদিকে স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে এলাকাবাসী। তারা এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানায়, শনিবার সকালে নানার বাড়ি থেকে পালেরহাট প্রাইভেট উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেনীর ছাত্রী হিরামনি বেগম সদর উপজেলার পশ্চিম গোপীনাথ নিজ বাড়িতে আসে। গত কয়েকদিন আগে হিরামনি বেগমকে নানার বাড়িতে রেখে ক্যান্সার আক্রান্ত অসুস্থ বাবাকে চিকিৎসার জন্য তার মা ঢাকায় নিয়ে যান।

সকালে অসুস্থ বাবাকে হাসপাতালে দেখভাল করতে ঢাকা যাওয়ার জন্য বাড়িতে আসে ওই ছাত্রী। কিন্তু এ সময় নিজ ঘরের ভিতরে দুর্বৃত্তরা তাকে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করে পালিয়ে যায়। তার সাড়া শব্দ না পেয়ে প্রতিবেশীরা ঘরের ভিতরে তার লাশ দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

লক্ষ্মীপুর সদর থানার ওসি (তদন্ত) মো. মোসলেহ্ উদ্দিন জানান, ওই স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। নিহতের মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনার ব্যাপারে তদন্ত চলছে। জড়িতদের চিহ্নিত করে গ্রেপ্তারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।