চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

লকডাউনে স্বেচ্ছাসেবক ছিলেন প্রিন্স উইলিয়াম

করোনাভাইরাস এর কারণে চলমান লকডাউনে পরিচয় গোপন রেখে জরুরি নম্বরে সাধারণ মানুষকে মানসিক স্বাস্থ্যসেবা দিয়েছেন ব্রিটেনের ডিউক অব কেমব্রিজ প্রিন্স উইলিয়াম।

সম্প্রতি একটি ভিডিও কলে প্রিন্স উইলিয়াম জানান, তিনি পরিচয় গোপন রেখে ছদ্মনামে একটি নাম্বারে টেক্সট মেসেজের মাধ্যমে মানুষের ব্যক্তিগত সমস্যার সমাধান দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

এই কাজে যুক্ত হওয়ার জন্য তিনি ব্রিটেনের মেন্টাল হেলথ চ্যারিটি থেকে প্রশিক্ষণ নেন।

বিজ্ঞাপন

উইলিয়ামের সহকর্মী স্বেচ্ছাসেবীরাও শুরুতে বিষয়টি জানতেন না। ঘটনাটি শুক্রবার প্রকাশ্যে আসলেও অন্য কাউন্সিলররা জানতে পারেন গত মাসে।

বিজ্ঞাপন

ওই ভিডিও কলে তিনি বলেন, ‘আমি আপনাদের সঙ্গে ছোট একটি রহস্য ভাগাভাগি করতে যাচ্ছি। আমি সত্যিকার অর্থে এই মাধ্যমে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে আছি।’

কেনসিংটন প্যালেস থেকে শুরুতে বিষয়টি গোপন রাখা হয়। কারণ এটি জানাজানি হলে অসংখ্য মানুষ জরুরি নম্বরে যোগাযোগের চেষ্টা করতেন। তাতে সেবা দেয়ার প্রক্রিয়া ব্যাহত হতো।

প্যালেস থেকে বলা হয়েছে, স্বেচ্ছাসেবী সপ্তাহ উপলক্ষে প্রিন্স উইলিয়াম প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে যোগ দেন। গত রোববার সপ্তাহ শেষ হয়েছে। যারা মেসেজ করেছেন তাদের ছদ্মনাম বলে ২ হাজার সাধারণ প্রশিক্ষিত কর্মীর মতো সেবা দিয়েছেন উইলিয়াম।

অন্যদিকে প্রিন্স উইলিয়ামের স্বেচ্ছাসেবী কাজের প্রশংসা করে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ বিশেষ এক বার্তায় বলেন, তার এ কাজ আসন্ন স্বেচ্ছাসেবী সপ্তাহে কাজ করা হাজারও সেবকের উৎসাহ যোগাবে। আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই যারা দয়া এবং মহানুভবতা নিয়ে স্বেচ্ছায় অন্যদের সেবায় নিজেদের নিয়োজিত করছেন।       

এই হেল্পলাইন কেমব্রিজ রয়্যাল ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে পরিচালিত। ওই হেল্পলাইন ৬০ শতাংশ মেসেজ এসেছে ২৫ বছরের কম বয়সীদের কাছ থেকে। যাদের বেশির ভাগই মানসিক স্বাস্থ্য সহযোগিতা চেয়েছে।