চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রোহিঙ্গা: জাপানি রাষ্ট্রদূতের মন্তব্যে মানবাধিকার কর্মীদের নিন্দা

‘মিয়ানমারের সেনাবাহিনী গণহত্যার উদ্দেশ্যে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর হামলা চালায়নি’, ইয়াঙ্গুনে স্থানীয় গণমাধ্যমের কাছে জাপানের রাষ্ট্রদূত ইছিরো মারুয়ামার করা এমন মন্তব্যের নিন্দা জানিয়েছেন টোকিওভিত্তিক মানবাধিকার কর্মীরা।

বুধবার তার ওই বক্তব্যের বিরুদ্ধে টোকিওভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন এ নিন্দা জানায়।

গত ডিসেম্বরে ইয়াঙ্গুনে স্থানীয় গণমাধ্যমকে জাপানের রাষ্ট্রদূত ইছিরো মারুয়ামা বলেছিলেন: আমি মনে করি না মিয়ানমারের সেনাবাহিনী সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর গণহত্যায় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ ছিল বা গণহত্যার উদ্দেশ্য নিয়েই হামলা চালিয়েছে।

অন্যদিকে রাষ্ট্রদূতের বক্তব্যের সমালোচনা করে জাপানভিত্তিক বার্মিজ রোহিঙ্গা অ্যাসোসিয়েশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট বলেন: রাষ্ট্রদূতের মন্তব্য ‘বিরক্তিকর’ ছিল। তার বক্তব্যে খুব হতাশ হয়েছি এবং দয়া করে রোহিঙ্গা জনগণকে সাহায্য করতে আবারও জাপান সরকারের কাছে আবেদন করছি। অপরাধীদের পাশে না দাঁড়ানোর আহ্বান জানাচ্ছি।

তিনি বলেন: জাপান সরকার এখনো সহযোগিতা করছে না। মিয়ানমারের বিরুদ্ধে নেয়া জাতিসংঘের কার্যক্রমকেও সমর্থন দিচ্ছে না।

বিজ্ঞাপন

জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাতে রয়টার্স জানায়: রাষ্ট্রদূতের ওই মন্তব্যের অর্থ এই নয় যে, চলমান মামলার আগেই কোনো সিদ্ধান্ত খোঁজা বা রায় দেয়া। বরং মিয়ানমারে কাজ করার সুবাদে রাষ্ট্রদূত তার ব্যক্তিগত মত প্রকাশ করেছেন।

রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী গণহত্যা চালিয়েছে, এমন অভিযোগে গত বছরের ১১ নভেম্বর আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে মামলা দায়ের করে পশ্চিম আফ্রিকার ছোট্ট মুসলিম দেশ গাম্বিয়া।

রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর মিয়ানমারের গণহত্যা মামলায় ২৩ জানুয়ারি অন্তর্বর্তী আদেশ দেবে নেদারল্যান্ডসের হেগ শহরে অবস্থিত আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে)।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর গণহত্যা, হত্যা, ধর্ষণ ও নিপীড়নের মুখে সর্বশেষ ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট থেকে সাড়ে ১১ লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়।

শেয়ার করুন: