চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা তদন্তে দুই কমিটি

জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন বলেছেন: ক্যাম্পের আগুনে যদি রোহিঙ্গারাও জড়িত থাকে তাহলে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। এছাড়া অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা তদন্তে দু’টি কমিটি গঠন করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

বুধবার দুপুরে কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা শিবিরে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনকালে তিনি এ কথা বলেন। পরে তিনি বালুখালীর ৯ নম্বর ক্যাম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে বিভিন্ন সামগ্রী বিতরণ করেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন: কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কারও দুরভিসন্ধি বা কারো অবহেলা কিংবা দোষ থাকলে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা নিয়ে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা তদন্ত করে সরকারের কাছে রিপোর্ট জমা দেবে। রিপোর্টে কারো দুরভিসন্ধি বা অবহেলা পাওয়া যায় তা অবশ্যই সরকার খতিয়ে দেখবে।

বিজ্ঞাপন

এ সময় তিনি আরও বলেন: যারা আগুনে ঘরবাড়ি হারিয়েছেন, তাদের ভাসানচর নেওয়ার কোনো পরিকল্পনা নেই। তবে কেউ যদি নিজের ইচ্ছায় ভাসানচর যেতে চায়, তাহলে তাদের সেখানে পাঠানো হবে। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা ঘুরে দেখেছি। এসব ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার।

মন্ত্রী আরও বলেন: এ আগুনে অনেক স্থানীয় পরিবারও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাদেরকেও সহযোগিতার আওতায় আনা হবে। যাতে তারাও দ্রুত ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে পারে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন, কক্সবাজার-৩ আসনের এমপি সাইমুম সরওয়ার কমল, কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর অধিনায়ক উইং কমান্ডার আজিম আহমেদসহ অন্য কর্মকর্তারা।

গত সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বালুখালী ৯ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। এরপর একে একে আটটি ক্যাম্পে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। আগুনে ১১ জনের মৃত্যু ও ৪০ হাজার বসতঘর পুড়ে গেছে।