চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রোববার থেকে খোলা গার্মেন্টসসহ রপ্তানিমুখী সব কারখানা

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকারের আরোপিত চলমান কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যেই আগামী রোববার (১ আগস্ট) থেকে খুলে দেয়া হচ্ছে তৈরি পোশাকসহ রপ্তানিমুখী সব ধরনের  শিল্পকারখানা।

শুক্রবার মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের মাঠ প্রশাসন ও সমন্বয় অধিশাখা থেকে এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এতে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসজনিত রোগের বিস্তার রোধে আরোপ করা কঠোর বিধিনিষেধের আওতামুক্ত থাকবে রপ্তানিমুখী সব ধরনের কারখানা। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় আগামী রোববার (১ আগস্ট) সকাল ৬টা থেকে রপ্তানিমুখী সব শিল্প ও কলকারখানা খোলা যাবে।

তাই এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

গত কয়েকদিন ধরেই শিল্প কারখানা খুলে দেয়ার দাবি জানিয়ে আসছেন শিল্পদ্যোক্তারা। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে মন্ত্রী পরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সঙ্গে বৈঠক করে শিল্পকারখানা খুলে দেয়ার অনুরোধ জানান তারা।

একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি আবেদনপত্রও দিয়ে আসেন ব্যবসায়ীরা।

ওই দিন বৈঠক শেষে পোশাক কারখানা মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর সভাপতি ফারুক হাসান সাংবাদিকদের বলেন, বিভিন্ন খাতের ব্যবসায়ীরা সচিবের সঙ্গে দেখা করেছেন। আমাদের দাবি, লকডাউনে সব ধরনের শিল্পকে যেন কাজ করতে সুযোগ দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রীর কাছে ওনার মাধ্যমে এই অনুরোধ করেছি। তিনি বলেছেন, উনি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবেন। কথা বলে এই ডিসিশনটা খুব তাড়াতাড়ি দেবেন।

তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতি, সংক্রমণ, মৃত্যু সবকিছু মাথায় নিয়ে সরকারের কাছে অনুরোধ জানানো হয়েছে। সরকার এটা বিবেচনা করবে বলে আশা করি।

করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার গত ১৩ জুলাই কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে। এরপর ১৯ জুলাই থেকে আবারও সেই বিধিনিষেধের সময় ৫ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। তবে চলমান বিধিনিষেধের মধ্যেই এখন শিল্প কারখানা খুলে দেয়ার নির্দেশ দিল সরকার।