চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রোগ ও রোগী শনাক্তে দেশে পর্যাপ্ত তথ্য ও গবেষণার অভাব

দেশে রোগ শনাক্তকরণে, রোগ ও রোগী সম্পর্কিত চিকিৎসা সেবার পর্যাপ্ত তথ্য ও গবেষণার অভাব রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা জাতীয় অধ্যাপক ব্রিগেডিয়ার (অব.) আব্দুল মালিক।

শুক্রবার রাতে রাজধানীর গ্রীন রোডে আইপিডিআই ফাউন্ডেশনের (ইন্টারেক্টিভ প্রফেশনাল ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভস) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, “তথ্য ও গবেষণা ছাড়া কোন দেশই তার সমস্যা চিহ্নিত করতে পারে না। আর প্রাথমিক সমস্যা চিহ্নিত করতে না পারলে তা উন্নয়নের পথে বাধা তৈরি করে। এ শূন্যস্থান পূরণ ও প্রয়োজনীয় তথ্য ভাণ্ডার তৈরিতে আইপিডিআই ফাউন্ডেশন অবদান রাখবে বলে আশা করছি।”

আইপিডিআই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. আবদুল ওয়াদুদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেল আবু মোহাম্মদ আমিন উদ্দিন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া, বাংলাদেশ কার্ডিয়াক সোসাইটির সভাপতি অধ্যাপক একেএম মহিবুল্লাহ।

বিজ্ঞাপন

করোনাকালে নতুন মেরুকরণে ভার্চুয়াল এবং সরাসরি হাইব্রিড অনুষ্ঠানে দেশ বিদেশের খ্যাতিমান বিভিন্ন পেশার বিশেষজ্ঞগণ অংশগ্রহণ করেন। এতে গবেষণা ও পেশাগত উন্নয়ন বিষয়ক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আইপিডিআই ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও জেনারেল সেক্রেটারি হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মহসীন আহমদ।

ভার্চুয়ালি প্রফেসর ইমাদ সেইবান ( ইতালি), তান হুয়ে চ্যান (সিঙ্গাপুর), জন সি জর্জ ( ইউ এস এ), সন্দীপ মিশ্র (দিল্লি), শহিদ মার্চেন্ট (মুম্বাই), অরুণ মাস্কি (নেপাল) অংশগ্রহণ করেন।

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে জনসংখ্যার তুলনায় বিশেষজ্ঞের সংখ্যা অপ্রতুল। এ শূন্যস্থান পূরণে উদীয়মান তরুণ পেশাজীবীদের গবেষণা এবং পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধিতে নিয়মিত প্রশিক্ষণ ও প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহ করবে আইপিডিআই ফাউন্ডেশন। যা দেশ ও জাতির কল্যাণে বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলে তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন আইপিডিআই ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. মহসীন আহমেদ।