চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গত মাসের তুলনায় হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীর চাপ কমেছে

ঈদের পরবর্তী সময় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা কমলেও আগামী ১৫ দিনের আগে ডেঙ্গু পরিস্থিতি বোঝা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছে চিকিৎসকরা। তারা বলছেন, রোগীদের মধ্যে ডেঙ্গু আতঙ্ক নেই। তবে বিভিন্ন হাসপাতালে বেসরকারি হিসাবে ডেঙ্গুতে ৯৫ জন, সরকারি হিসাবে ৪০ জন মারা গেছেন।  

গত একমাসের তুলনায় বর্তমানে রাজধানীর হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গু রোগীর চাপ কিছুটা কমেছে। শিশু হাসপাতালে গত দুই সপ্তাহের তুলনায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত শিশুর সংখ্যা কম। বর্তমানে এই হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত আছে ১০২ জন শিশু। গত দুই মাসে ছিলো ৮৫৬ জন। রাজধানী শহীদ সোহরাওয়ার্দী, হলি ফ্যামেলি হাসপাতালেও ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাও কমে আসছে।

বিজ্ঞাপন

চিকিৎসকরা বলছেন, আগামী ১৫ দিনের আগে ডেঙ্গু পরিস্থিতি কোনদিকে যাচ্ছে সেটি বোঝা যাবে না।

রাজধানী সোবাহানবাগে ডিএমএফআর মলিকুলার ল্যাব এন্ড ডায়গনস্টিকস ডেঙ্গু শনাক্ত করা রোগীর হারও কমেছে। সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এই ল্যাবে গত ৫ আগস্ট থেকে গতকাল পর্যন্ত ৩১২ রোগীর মধ্যে ১৫৪ জনের ডেঙ্গু পজেটিভ।

বিজ্ঞাপন

এদিকে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন্স সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ১ হাজার ৭০৬ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন।

রাজধানী ঢাকার সরকারি-বেসরকারিসহ সারাদেশের প্রায় ৪১টি হাসপাতালে বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৭ হাজার ১৬৮ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত।

ডেঙ্গুতে রাজধানীতে নাজিমউদ্দীন নামে রোববার আরো একজন মারা গেছেন। তার বাড়ি নোয়াখালী। জামালপুরে ডেঙ্গুতে এক রাজমিস্ত্রি ও এক গার্মেন্টস কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে কিশোরগঞ্জ থেকে আসা রাসেল মিয়া নামে একজন ময়মনসিংহ মেডিকেলে মারা গেছেন।

ঈদের ছুটি কাটিয়ে স্কুল-কলেজ খোলার পর বাচ্চাদের প্রতি অভিভাবকদের পর্যাপ্ত নজর রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

Bellow Post-Green View