চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রেশমার মৃত্যু: আরও এক গাড়ির চালক গ্রেপ্তার

রাজধানীর শেরে বাংলা নগর থানা এলাকায় গাড়িচাপায় পর্বতারোহী রেশমা নাহার রত্না (৩৩) নিহতের ঘটনায় আরও একজন গাড়ি চালককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গাড়ি চালকের নাম দারুস সালাম। এছাড়া একটি মাইক্রোবাসও জব্দ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, টয়োটা মাইক্রোবাসের গাড়ির মালিক দারুস সালামকে বৃহস্পতিবার রাজধানীর শাহজাহানপুর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ইতোমধ্যে আদালতের মাধ্যমে তাকে দুইদিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। রিমান্ডের আজ দ্বিতীয় দিন চলছে।

এর আগে এই মামলায় মো. নাঈম নামে একজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ওই সময় ১২ সিটের একটি কালো রঙের হায়েস মাইক্রোবাসও জব্দ করা হয়। নাঈমকেও আদালতের মাধ্যমে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ বলছে, রিমান্ড শেষে নাঈম ১৬৪ ধারায় কোনো স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেননি। সিসিটিভি ফুটেজে নাঈমের গাড়ি ও দারুস সালামের গাড়ি পাশাপাশি দেখা গেছে। তাই তাকেও গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। দুই গাড়িচালককে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এর আগে গত ১৮ আগস্ট নাঈমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তারের পর পুলিশের তেজগাঁও বিভাগ জানিয়েছিল, ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন এলাকার প্রয়োজনীয় সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহে জন্য তিনটি টিম গঠন করা হয়। সম্ভাব্য যাত্রাপথ ধরে মাইক্রোবাসটির অবস্থান শনাক্তে কাজ শুরু করা হয়।

সেসময় তেজগাঁও’র ডিসি হারুন বলেন, কালো মাইক্রোবাসটির সম্ভাব্য যাত্রাপথ ধরে মাইক্রোবাসটির অবস্থান শনাক্তে কাজ শুরু করা হয়। প্রাথমিকভাবে মূল সড়ক, অন্যান্য সড়ক, বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ও আবাসিক স্থাপনার প্রবেশ পথে থাকা ৩৮২টি সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ ও পর্যালোচনা করে ঘটনার কিছু সময় পূর্ব ও পরে মাইক্রোবাসটির যাত্রাপথ শনাক্তে সক্ষম হয় শেরে বাংলা নগর থানা পুলিশ।

“এ সকল সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করে কালো হায়েস মডেলের মাইক্রোবাসটির বেশ কিছু অস্পষ্ট ডিজিটাল নম্বর প্লেটের ছবি পাওয়া যায়। প্রাপ্ত নম্বরগুলো কিছুটা স্পষ্ট করে প্রাথমিকভাবে ১১২টি মাইক্রোবাসের বিষয়ে কাজ শুরু হয়। ৪টি আলাদা টিম গঠন করে বিআরটিএসহ বিভিন্ন মাধ্যম থেকে এ সকল মাইক্রোবাসের মালিকানা, রঙ, সিটের সংখ্যা ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্যাদি সংগ্রহের বিষয়ে দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ শুরু করে শেরেবাংলানগর থানা পুলিশ।”

গত ৭ আগস্ট রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানের পাশে লেক রোডে বাইসাইকেল আরোহী রেশমা নাহারকে একটি মাইক্রোবাস ধাক্কা দিলে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় রেশমার দুলাভাই মনিরুজ্জামান বাদী হয়ে মামলা করেন।

রেশমা নাহার ঢাকার আইয়ুব আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করতেন। তার বাড়ি নড়াইলে। ঢাকায় মিরপুরে থাকতেন। তিনি পর্বতারোহী ছিলেন এবং নিয়মিত বাইসাইকেল চালাতেন।