চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনা রোগীদের চিকিৎসায় রেমডিসিভিরকে অনুমোদন দিলো যুক্তরাষ্ট্র

হাসপাতালগুলোতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ রেমডিসিভিরকে সম্পূর্ণ অনুমোদন দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) জানিয়েছে, ভেকলারি ব্র্যান্ডের এই ওষুধটি ক্লিনিকাল ট্রায়াল চলাকালে করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার সময় গড়ে পাঁচ দিন কমিয়েছে। এফডিএ এক বিবৃতিতে বলেছে, করোনাভাইরাসের জন্য এফডিএ’র অনুমোদন পাওয়া প্রথম চিকিৎসার নাম ভেকলারি।

বিজ্ঞাপন

যদিও এই ওষুধ নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা(হু) গত সপ্তাহে বলেছে, করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের বাঁচাতে রেমডিসিভিরের খুব একটা প্রভাব নেই। নিজস্ব গবেষণার ভিত্তিতে এমন কথা বলেছিলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তবে ওষুধটির প্রস্তুতকারী জিলেড এই পরীক্ষার ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেছে।

গত মে মাস থেকেই যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি ক্ষেত্রে ব্যবহারের অনুমোদন পেয়েছিলো রেমডিসিভির।  সম্প্রতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকেও এই ওষুধটি প্রয়োগ করা হয়। তিনি সুস্থও হয়ে উঠেছেন।

বিজ্ঞাপন

বিবৃতিতে এফডিএ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার ওষুধটিকে অনুমোদন দেওয়া হয়। বয়স্ক ও ১২ বছরের বেশি বয়সীরা এই ওষুধ নিতে পারবেন যাদের ওজন ৪০ কেজির বেশি।

এফডিএ কমিশনার স্টিফেন হ্যান বলেন, একাধিক ক্লিনিকাল ট্রায়ালের ভিত্তিতে আজকের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এটি করোনা মহামারীতে একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈজ্ঞানিক মাইলফলককে কঠোরভাবে মূল্যায়ন করেছে এবং উপস্থাপন করেছে।

তিনটি স্বত:স্ফূর্ত ও নিয়ন্ত্রিত ক্লিনিকাল ট্রায়ালের ভিত্তিতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, যেখানে হালকা থেকে খুবই খারাপভাবে আক্রান্ত হাসপাতালে ভর্তি করোনা আক্রান্ত রোগীদের অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। এক গবেষণায় দেখা গেছে ভেকলারি গ্রুপের ওষুধে রোগমুক্তির সময় ১০ দিন লাগে, প্লেসবো গ্রুপের ওষুধের সেখানে ১৫ দিন প্রয়োজন হয়।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৮৬ লাখ ছাড়িয়েছে। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছে ২ লাখ ২৮ হাজারের বেশি মানুষ।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস। বর্তমানে সারাবিশ্বে ৪ কোটি ১৯ লাখ মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত। আর প্রাণ হারিয়েছে ১১ লাখ ৪২ হাজারের বেশি মানুষ।