চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রেনু হত্যায় নেতৃত্ব দেয়া হৃদয় ৫ দিনের রিমান্ডে

বাড্ডায় রেনু হত্যার নেতৃত্ব দেয়া ইব্রাহীম ওরফে হৃদয়কে ৫ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। হত্যায় সরাসরি অংশ নেয়া ৮ জনের নাম পরিচয় ইতোমধ্যেই পুলিশকে জানিয়েছে হৃদয়।

এ হত্যাকাণ্ডের পর গ্রেপ্তার এড়াতে চেহারায় কিছুটা পরিবর্তন এনে খালার বাড়ি নারায়ণগঞ্জের ভুলতায় আত্মগোপন করে সে। তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় সেখান থেকেই তাকে আটক করে ডিবি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসায় অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেয় সে।

বিজ্ঞাপন

রেনু হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে বিকেলে হৃদয়কে হাজির করা হয় ঢাকার সিএমএম আদালতে। তদন্ত কর্মকর্তা আদালতকে বলেন, ইতোমধ্যে হৃদয় পুলিশকে অনেক তথ্য দিয়েছে। সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তাকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা দরকার। এসময় রিমান্ডের বিরোধিতা করে হৃদয়ের জামিনে মুক্তি চান আইনজীবীরা।

রেনুকে ছেলেধরা অপবাদ দেয়ার মুল উদ্যোক্তা এক নারীকে খুঁজছে পুলিশ ও গোয়েন্দারা।

বিজ্ঞাপন

গোয়েন্দারা বলছে, ফেসবুকের মাধ্যমে বিদেশ থেকে গুজব ছড়ানো স্ট্যাটাসে লাইক-শেয়ার করা দেশি-বিদেশি অন্তত ১৪ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে তারা। তাদের গ্রেপ্তারে শুরু হয়েছে অভিযান।

রেনু হত্যা মামলায় এ নিয়ে গ্রেপ্তার হলো আটজন। এদের একজন আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছে।

শনিবার সকালে রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় মেয়েকে ভর্তি করানোর তথ্য জানতে স্থানীয় একটি স্কুলে যান মা তাসলিমা রেনু (৪০)। এ সময় তাকে ছেলেধরা সন্দেহে প্রধান শিক্ষকের রুম থেকে টেনে বের করে গণপিটুনিতে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনায় এদিন রাতেই বাড্ডা থানায় অজ্ঞাত ৪০০-৫০০ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন নিহতের ভাগিনা নাসির উদ্দিন।

বিস্তারিত দেখুন ভিডিও রিপোর্টে:

Bellow Post-Green View