চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রেডিমেড গার্মেন্টসের ২৫৯ কার্টন চুরির পণ্য উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৭

রাজধানীর তুরাগের ধৌড় চৌরাস্তা এলাকা থেকে রেডিমেড গার্মেন্টসের কার্টন খুলে মালামাল চুরির সময় সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে ডিএমপির গোয়েন্দা (সিরিয়াস ক্রাইম) বিভাগ।

গ্রেফতাররা হলেন, মো. মঞ্জুরুল ইসলাম, মো. রাসেল ওরফে শাহজাহান, মো. মনির হোসেন, মো. খোরশেদুল আলম ওরফে মামুন, মো. নাজিম, মো. মধু শেখ ও মো. আব্দুল করিম।

বিজ্ঞাপন

এসময় তাদের কাছ থেকে মেসার্স লেনী অ্যাপারেলস লিমিটেডের ২৫৯ কার্টনে ৩১০৮ পিস রেডিমেট গার্মেন্টস প্যান্ট ও একটি কাভার্ড ভ্যান জব্দ করা হয়।

রোববার  ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য দেন মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মো. আব্দুল বাতেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, রেডিমেট পণ্য বিদেশে শিপমেন্টের সময় একটি চক্র পথে কাভার্ড ভ্যান থেকে কার্টন খুলে কিছু মাল সরিয়ে রাখত। এতে রেডিমেট পণ্যটি বিদেশে রফতানির পর বায়ার মালামাল কম পেলে পুরো পেমেন্ট দিতে ও ভবিষ্যতে মালামাল নিতে অস্বীকৃতি জানাত, যা দেশের গার্মেন্টস শিল্পের জন্য চরম ক্ষতিকর। এমন এক চক্রের সাত সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল বাতেন

গ্রেপ্তার চক্র সম্পর্কে তিনি বলেন, তারা একটি সংঘবদ্ধ চোরাই ও ছিনতাইকারী দলের সক্রিয় সদস্য। তারা পরিকল্পিতভাবে গার্মেন্টস শিল্পের ভাবমূর্তি বিদেশে ক্ষুণ্ন করার জন্য এবং গার্মেন্টস শিল্পকে ধ্বংসের জন্য বিদেশে পাঠানোর সময় প্রতিটি কার্টন থেকে কিছু মালামাল সরিয়ে পরবর্তীকালে অনুরূপভাবে কার্টনে চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছে দেয়। ফলে বিদেশে পৌঁছার পর আমদানিকারকরা কার্টন খোলার পর মালামাল কম পায়।

এ কারণে বিভিন্ন কোম্পানিকে জরিমানা এবং পরে ওই আমদানিকারক (বিদেশি কোম্পানি) বাংলাদেশের গার্মেন্টস ব্যবসায়ীদের সঙ্গে ব্যবসার আগ্রহ হারিয়ে ফেলেন।

এ বিষয়ে কিছুদিন ধরে গার্মেন্টস রফতানি পণ্যের এরকম বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে এবং দেশের বিভিন্ন থানায় এ বিষয়ে একাধিক মামলা হয়েছে বলে জানান আব্দুল বাতেন।