চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রেকর্ড দিয়ে নিউজিল্যান্ডকে সিরিজ জেতালেন ফিলিপস

ব্যাটিং করতে নেমেছিলেন চারে। সেটি ছিল পাওয়ার প্লের পরে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোলারদের ভাগ্য ‘খানিক’ ভালো, শুরুতে গ্লেন ফিলিপসের মুখোমুখি হতে হয়নি। নিউজিল্যান্ডের ২৩ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান যে ঝড়টা তুলেছিলেন, তাতে স্বাগতিকদের স্কোর হয়ে যেতে পারত আরও নাগালছাড়া!

অবশ্য খানিক পরে ব্যাটিংয়ে নেমেই ফিলিপস টি-টুয়েন্টিতে যা করেছেন, সেটি নিয়ে ভবিষ্যতে অজস্র কাহিনী রচনার সুযোগ থাকছে। ইনিংসের ৩৮ বল পরে নেমে একা হাতে ক্যারিবীয় বোলারদের পিটিয়েছেন নির্দয়ভাবে! গড়েছেন দেশের হয়ে দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ড। সেটিতে ভর করে উইন্ডিজের বিপক্ষে ২-০তে টি-টুয়েন্টি সিরিজ জিতে নিয়েছে কিউইরা।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

রোববার মাউন্ট মঙ্গানুইতে টস জিতে স্বাগতিকদের ব্যাট ধরিয়ে দেন ক্যারিবীয় অধিনায়ক কাইরেন পোলার্ড। দুই ওপেনার ৩৩ বলে ৪৯ রান তুললেও পরিস্থিতি সফরকারীদের অনুকূলেই ছিল। ৩৪ বলের মাথায় জুটি ভাঙেন ওশানে থমাস, ১৩ বলে ১৮ করে বোল্ড হন টিম সেইফার্ট। পরের ওভারে ফ্যাবিয়ান অ্যালেনের বলে উইকেটে বিলিয়েছেন ২৩ বলে ৩৪ করা মার্টিন গাপটিল।

তখন উইকেটে আসেন গ্লেন ফিলিপস। দশম ওভার পর্যন্ত কনওয়েকে নিয়ে রয়েসয়ে ছিলেন, তার রান তখন ১০ বলে ১৫। একাদশ ওভারে লাগাম ঢিলে করে দেন কিমো পল, শেষ তিন বলে দুই চার আর এক ছয়ে ওঠে ১৪ রান।

বিজ্ঞাপন

পরের ওভার রোভম্যান পাওয়েল বুঝেশুনে করলেও ত্রয়োদশ ওভারে ঝড়ের মুখে পড়েন অ্যালেন, তাকে তিনবার বাউন্ডারির ওপারে আছড়ে ফেলেন ফিলিপস, সাথে ছিল এক চারও। এক নো বলসহ ওই ওভারে কিউই ব্যাটসম্যান তুলে নেন ২৩। ততক্ষণে ২৫ বলে ৬০ রান হয়ে গেছে তার।

পলের ওভার দিয়ে শুরু, ফিলিপস ঝড় থামে ইনিংসের এক বল আগে। তার আগে ৪৬ বলে সেঞ্চুরি তুলে নতুন রেকর্ড গড়েছেন মাত্রই দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি খেলতে নামা ডানহাতি উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। নিউজিল্যান্ডের দ্রুততম টি-টুয়েন্টি সেঞ্চুরির রেকর্ড ছিল কলিন মুনরোর, ফিলিপসের চেয়ে এক বল বেশি খেলেছিলেন। সবমিলিয়ে বিশ্বের দশম দ্রুততম টি-টুয়েন্টি সেঞ্চুরি এটি।

৫১ বলে ১০৮ রানে থেমেছেন ফিলিপস। ৭২ মিনিটের ইনিংস তখন বিনোদনে ভরপুর। ১০ চার, সঙ্গে ৮ ছক্কা। ৮৪ রান এসেছে কেবল বাউন্ডারি থেকেই। ডেভন কনওয়ের সঙ্গে গড়েছেন ১৮৪ রানের জুটি। নিউজিল্যান্ড পায় ২৩৮ রানের বিশাল সংগ্রহ।

খুব একটা খারাপ খেলেননি কনওয়েও, আড়ালে পড়ে গেছেন ফিলিপসের। ৩৭ বলে তার ৬৫ রানের ইনিংসে মূল দায়িত্ব ছিল ফিলিপসকে সঙ্গে দেয়া, সেটা ভালোই করে গেছেন।

বড় রানতাড়ায় ধুঁকে ধুঁকে ১৬৬তে খেলা শেষ করেছে উইন্ডিজ। টি-টুয়েন্টিতে বড় নামের ভিড়ে নুয়ে পড়া দলটির একজন ব্যাটসম্যানও ত্রিশের কোটা পেরোতে পারেননি, পুরো ২০ ওভার খেলে ৭২ রানে ম্যাচ হেরেছে ক্যারিবীয়রা।