চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রেকর্ডটা কোহলির হওয়ারই ছিল

রোহিতের সেঞ্চুরিতে সিরিজ ভারতের

যেভাবে রানবন্যা ছোটান, গত কয়েকবছরে মাঠে নামলেই বিরাট কোহলির একের পর এক রেকর্ডের পাতা ভরানোর ইতিহাস হরহামেশাই হয়ে গেছে। রোববার তেমনি একটি দিন কেটেছে ভারত দলপতির। অধিনায়ক হিসেবে দ্রুততম ৫ হাজার ওয়ানডে রানের মালিক এখন তিনি। সঙ্গে ছিল রোহিত শর্মার সেঞ্চুরি। ফলাফল, জয়ে সফর শুরু করা অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে সিরিজটা নিজেদের করে নিয়েছে ভারত।

বেঙ্গালুরুতে স্টিভেন স্মিথের সেঞ্চুরি ও মার্নাস লাবুশেনের অভিষেক ফিফটিতে নির্ধারিত ওভারে ৯ উইকেটে ২৮৬ রান তুলেছিল অস্ট্রেলিয়া। জবাব দিতে নেমে রোহিতের শতক ও কোহলির অর্ধশতকে ১৫ বল আর ৭ উইকেট হাতে রেখে জয় তুলেছে ভারত।

বিজ্ঞাপন

সিরিজের প্রথম ম্যাচে আড়াইশ পার করেও ১০ উইকেটে হার। ভারতকে বড় ধাক্কাই দিয়েছিল সফরকারীরা। শোধ তুলে টানা দুম্যাচে দাপট দেখাল স্বাগতিকরা, অস্ট্রেলিয়া তাতে আর তিন ওয়ানডের সিরিজে পাত্তাই পেল না। ২-১ ব্যবধানে সিরিজ স্বাগতিকদের।

শুরুর গল্পটা স্মিথ ও লাবুশেনের। দুজনে ১২৭ রানের জুটি গড়ে বড় স্কোরের ভিত দেন। ৫৪ রান করে ফিরেছেন লাবুশেন। পরে রানের গতি বাড়াতে কেউ আর স্মিথকে সঙ্গ দিতে পারেননি।

অন্যপ্রান্তে স্মিথ নিজের মতোই খেলেছেন। গত ম্যাচে ২ রানের জন্য সেঞ্চুরি হাতছাড়া হয়েছিল। এদিন সুযোগ লুটেছেন। ১৩২ বলে ১৩১ রানের ইনিংস, ১৪ চার ও এক ছয়ে।

জবাবে একটা দুঃসংবাদ সঙ্গী করে নেমেছিল ভারত। ম্যাচের পঞ্চম ওভারে ফিল্ডিংয়ের সময় কাঁধে চোট পাওয়া ইনফর্ম শেখর ধাওয়ান ব্যাটে নামতে পারবেন না। ওপেনিংয়ে রোহিতের সঙ্গী তাই লোকেশ রাহুল।

বিজ্ঞাপন

রোহিত ও রাহুল ৬৯ রানের জুটিতে শুরুটা ভালোই আনেন। রাহুলের অবদান তাতে কেবল ১৯। পরে কোহলি ও রোহিত জমে যান অজি বোলিংয়ের মুখে। দুজনে ১৩৭ রান যোগ করে বিচ্ছিন্ন হয়েছেন, ততক্ষণে ম্যাচ ভারতের দিকে হেলে পুরোই। বেঙ্গালুরুতে এটিই সর্বোচ্চ রানের জুটি, পেছনে পড়েছে শচীন-গাম্ভীরের ১৩৫।

৮ চার ও ৬ ছক্কায় ১২৮ বলে ১১৯ রান করে সাজঘরে হাঁটা দেন রোহিত। ক্যারিয়ারে ২৯তম ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অষ্টম সেঞ্চুরি তার। পথে ওয়ানডের দ্রুততম নয় হাজারি ক্লাবের ছোট্ট তালিকায় প্রবেশ করেছেন।

রোহিত এখন ওয়ানডেতে তৃতীয় দ্রুততম ৯ হাজারি ক্লাব ছোঁয়ার মালিক। এক নম্বরে কোহলি ২০২ ম্যাচ ১৯৪ ইনিংসে, দুইয়ে এবি ডি ভিলিয়ার্স ২১৪ ম্যাচ ২০৫ ইনিংসে। পেছনে পরেছেন সৌরভ গাঙ্গুলি ও শচীন টেন্ডুলকার।

রোহিতের বিদায়ের পর কোহলি যোগ্য সঙ্গ পান শ্রেয়াস আয়ারের থেকে। দুজনে জয় থেকে ১৩ রান দূরে বিচ্ছিন্ন হয়েছেন। যখন ৮৯ রান করে ফেরেন কোহলি। ৩৫ বলে ৪৪ করে ম্যাচ শেষ করে ফেরেন আয়ার।

ফেরার আগে নেতৃত্বকালীন সময়ে রানের উজ্জ্বল এক রেকর্ড নিজের করে থেমেছেন কোহলি। ভারত অধিনায়ক পেছনে ফেলেছেন মহেন্দ্র সিং ধোনিকে। অধিনায়ক হিসেবে পাঁচ হাজার রান পূর্ণ করেছেন কোহলি, মাইলফলকে এখন দ্রুততম তিনিই।

আগে ওয়ানডেতে সাত অধিনায়ক এই কীর্তি গড়েছেন। যার মধ্যে ধোনির লেগেছিল ১২৭ ইনিংস, যা আগের দ্রুততম। কোহলির লাগল কেবল ৮২ ইনিংস। ধোনি রেকর্ড কেড়েছিলেন অজি কিংবদন্তি রিকি পন্টিংয়ের থেকে, ১৩১ ইনিংসে পাঁচ হাজার ছুঁয়েছিলেন বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক পন্টিং।