চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রিয়াল থেকে স্প্যানিশরাই হারিয়ে যাচ্ছে!

খুব বেশিদিন আগের কথা নয়, রিয়াল মাদ্রিদ ক্লাবটা দেশের জাতীয় প্রকল্পের একটা কিছু ছিল। লস ব্লাঙ্কোসরা তাদের জাতীয় পরিচয় বজায় রাখতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধও ছিল।

২০১৩ সালে দানি কারভাহাল, আসিয়ের ইয়ারামেন্দি ও ইসকো ক্লাবে যোগ দেন। সেসময় রিয়ালের প্রকল্প থেকে উঠে আসেন নাচো ফার্নান্দেজ, আলভারো মোরাতা ও জেসে রদ্রিগেজ। তাদের সঙ্গে অন্যরাও ছিলেন। সেই ধারা অব্যাহতই ছিল।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু ২০১৯/২০ মৌসুমে এসে সেই চিত্র অনেকটাই বদলেছে। এ মৌসুমে মাত্র আটজন স্প্যানিশ ফুটবলার আছেন রিয়ালে। যেটা গত বছরের চেয়েও চারজন কম। আর গত ১২ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন।

এমন নীতি সাম্প্রতিক বছরগুলোতে অনুসরণ করা হয়নি এবং এই বছরগুলোতে যতজন স্প্যানিশ খেলোয়াড় রিয়াল ছেড়েছেন, তাদের জায়গা ভরাতে এসেছেন তার চেয়েও কম।

২০১৬তে জিনেদিন জিদান যখন রিয়ালের দায়িত্ব নেন তখনো স্কোয়াডে ১১জন স্প্যানিশ খেলোয়াড় ছিলেন। দায়িত্ব নেয়ার মাত্র মাসখানেকের মধ্যে তারাই জিদানকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ উপহার দিয়েছেন।

ওই বছর ডাবল জেতার পর নয়জন স্প্যানিশ খেলোয়াড় রিয়াল ছাড়েন। আলভারো আরবেলোয়া যান ওয়েস্টহ্যামে, বোর্জা মায়োরাল পাড়ি জমান উল্ফসবার্গে। একই সময় জেসাস ভ্যালেজো লোনে যান ফ্রাঙ্কফুটে। পিএসজিতে যান জেসে। তবে এ সময়ে আবার লোন থেকে ক্লাবে ফেরেন মার্কো আসেনসিও, মার্কোস লরেন্তে এবং মোরাতা।

বিজ্ঞাপন

গত মৌসুমেও জিদানের অধীনে ১১জন স্প্যানিশ খেলোয়াড় খেলেন। কিকো কাসিয়া, কারভাহাল, নাচো, সার্জিও রামোস, ভ্যালেজো, দানি সেবোয়াস, আসেনসিও, লরেন্তে, মায়োরাল এবং লুকাস ভাসকুয়েজ।

সান্টিয়াগো সোলারির জায়গায় দ্বিতীয়বার যখন জিদান দায়িত্ব নেন, তখন দলে ফেরেন আলভারো অদ্রিওজোলা, সার্জিও রেগুইলন রদ্রিগেজ এবং ব্রাহিম ডিয়াজ। কিন্তু এডার মিলিতাও এবং বেঞ্জামিন মেন্ডি রিয়ালে যোগ দেয়ায় ক্লাব ছাড়েন রেগুইলন, সেবোয়াস ও ভ্যালেজো। এই গ্রীষ্মে আবার দল ছাড়েন লরেন্তে।

দলবদলের সময়সীমার মধ্যে রিয়াল যদি কোনো নতুন স্প্যানিশ খেলোয়াড় দলে না টানে, তাহলে গত ১২ বছরের মধ্যে সবচেয়ে কম দেশি খেলোয়াড় নিয়ে খেলবে ক্লাবটি।

এদিকে বেশি বিদেশি খেলোয়াড় নিয়ে খানিকটা যন্ত্রণায়ও আছেন রিয়াল কোচ জিদান। নন-ইউরোপিয়ান কোটায় লা লিগাতে প্রতিটি ক্লাব সর্বোচ্চ ৩ জন খেলোয়াড়কে নিবন্ধিত করতে পারে। কিন্তু এ মূহুর্তে রিয়ালে আছেন ৫ জন- মিলিতাও, ফেডে ভালভার্দে, ভিনিসিয়াস জুনিয়র, রদ্রিগো ও তাকেফুসো খুবো।

যেহেতু খেলানো যাবে কেবল তিনজনকে, তাহলে বাকী দুজনের ক্ষেত্রে কী হবে তা নিয়ে ভাবনায় লস ব্লাঙ্কোস ম্যানেজমেন্ট। কাসেমিরোকে নিয়ে অতীতে এই সমস্যা থাকলেও ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার সম্প্রতি স্পেনের নাগরিকত্ব পাওয়ায় দুশ্চিন্তা আপাতত নেই।

এমন সমস্যা এড়াতে একটা সমাধান অবশ্য তৈরি করাই আছে রিয়ালের। ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে গত মৌসুমের পুরোটা সময় লা লিগাতে না খেলিয়ে যুব দল কাস্তিয়াতে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে খেলানো হয়েছে। এই পাঁচজনের ক্ষেত্রে এবারও সেটাই করার ইচ্ছা স্প্যানিশ জায়ান্টদের।

Bellow Post-Green View