চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রিয়াল জিতেছে, তবে ঘাম ঝরিয়ে

দেয়াল হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন সেভিয়া গোলরক্ষক টমাস ভাদিক। নির্বিষ সব আক্রমণ করে সেই দেয়ালকে আরও মজবুত বানিয়ে রেখেছিলেন রিয়াল মাদ্রিদের খেলোয়াড়রা। দেয়াল ভাঙতে শেষ পর্যন্ত এগিয়ে আসলেন কাসেমিরো। ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডারের দূরপাল্লার এক শট লস ব্লাঙ্কোসদের দেখায় জয়ের পথ।

শনিবার লা লিগায় সেভিয়ার বিপক্ষে ২-০ গোলে রিয়াল জয় পেয়েছে ঠিকই, কিন্তু ম্যাচের ফল বোঝাতে পারবে না কতটা ঘাম ঝরিয়ে জয় পেতে হয়েছে স্প্যানিশ জায়ান্টদের।

বিজ্ঞাপন

সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে প্রথমার্ধ দেখে বোঝারও উপায় ছিল না আসলে জয়ের জন্য খেলছে দুই দলই। প্রথম ৪৫ মিনিট অনেকটা ঘুম পাড়ানি খেলা খেলে রিয়াল-সেভিয়া।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেও খানিকটা থাকল তারই ছায়া। এরমাঝে যাও টুকটাক আক্রমণ ছিল রিয়ালের, তা একাই ফিরিয়ে দিচ্ছিলেন সেভিয়া গোলরক্ষক। অবশ্যই ডিফেন্ডারদের সাহায্য নিয়ে!

বিজ্ঞাপন

ম্যাচের ৬৭ মিনিটে দানি সেবোয়াসের শট বারে লেগে ফিরতেই যেন ঘুম ভাঙে রিয়ালের। ঘরের মাঠে পয়েন্ট হারালে যে পরেরবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলা কঠিন হয়ে যাবে সেই শঙ্কাও যেন চেপে বসে সান্তিয়াগো সোলারির শিষ্যদের।

তাতে আক্রমণের জোর বাড়ল, সঙ্গে গোল হওয়ার সম্ভাবনাও। ৭৮ মিনিটে কাসেমিরোর দূরপাল্লার শটেই গোলবন্ধ্যা ম্যাচে লাগে জয়ের হাওয়া।

ডি-বক্সের ভেতরে সব আক্রমণই ফিরিয়ে দিচ্ছিলেন সেভিয়া গোলরক্ষক ভাদিক। তাই বাধ্য হয়ে ২৫ গজ দূর থেকে শট নেন কাসেমিরো। ভাদিক ঝাঁপালেন, বল তার হাতেও লাগল, কিন্তু ঠেকাতে পারলেন না। গোলের আনন্দে লাফিয়ে উঠলেন রিয়াল সমর্থকরা।

কোপা ডেল রেতে আগের ম্যাচেই লেগানেসের বিপক্ষে হার আছে। তাই এক গোল নিরাপদ নয় ভেবে আবারও আক্রমণের ধার বাড়ায় রিয়াল। তার ফল আসে ৯২ মিনিটে। প্রতিপক্ষ গোলরক্ষককে একা পেয়ে তার মাথার উপর দিয়ে বল জালে পাঠান বর্তমানে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড় লুকা মদ্রিচ।

স্বস্তির জয় নিঃসন্দেহে। সঙ্গে পয়েন্ট টেবিলও দিচ্ছে সুখবর। এই হারে টেবিলের তিন থেকে চারে নেমে গেছে সেভিয়া। আর তাদেরই নীচে ঠেলে সেই জায়গা নিয়েছে রিয়াল। ২০ ম্যাচে ৩৬ পয়েন্ট লস ব্লাঙ্কোসদের। সমান ম্যাচে সেভিয়ার পয়েন্ট ৩৩। এক ম্যাচ কম খেলা বার্সা ১৯ ম্যাচে ৪৩ পয়েন্টে আছে সবার ওপরে।

Bellow Post-Green View