চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রিয়াল ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি, অ্যাটলেটিকোকে দাঁড়াতেই দেয়নি বায়ার্ন

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের রাজা তারা, সবচেয়ে বেশিবার জয়ী। সেই রিয়াল মাদ্রিদকে তাদেরই ঘরে এসে বেশ ভুগিয়ে গেল শাখতার দোনেৎস্ক। ইউক্রেনের ক্লাবটির কাছে হেরে নতুন মৌসুম শুরু করেছে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা।

আলফ্রেডো ডি স্টেফানো স্টেডিয়ামে ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে রিয়ালকে ৩-২ গোলে হারিয়ে গেছে শাখতার।

বিজ্ঞাপন

ঘরের মাঠে শেষ লিগ ম্যাচে কাদিজের কাছে হারের স্মৃতি নিয়ে নামা রিয়াল ২৯ মিনিটে পিছিয়ে পড়ে টেটের গোলে। চার মিনিট পর রিয়ালে ফের ধাক্কা। এবার রাফায়েল ভারানে নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করে দেন প্রতিপক্ষের।

মধ্যবিরতির আগে, ম্যাচের ৪২ মিনিটে সেটি ৩-০ করে ফেলে শাখতার, মানোর সলোমনের গোল। সেই ২০০৫ সালে লিওঁর বিপক্ষে সবশেষ প্রথমার্ধে তিন গোল হজম করেছিল রিয়াল, দেড়দশক পর আবারও স্মৃতির ধুলোঝাড়া।

বিজ্ঞাপন

দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া রিয়াল অনেকটা সফলও হয়। ৫৪ মিনিটে লুকা মদ্রিচ ও ৫৯ মিনিটে ভিনিসিয়াস জুনিয়র গোল করে ম্যাচ জমিয়ে তোলেন।

যোগ করা সময়ে ফেদেরিকো ভালভার্দের শট জাল খুঁজে নিয়েছিল। কিন্তু ভিএআরের সাহায্যে সেই গোল বাতিল করে দেন রেফারি, ভিনিসিয়াস ছিলেন অফসাইডে। তাতে অন্তত ড্রটাও মেলেনি বার্নাব্যুতে।

বায়ার্ন-অ্যাটলেটিকো
রাতের আরেক ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন নিউনিখের মাঠে দাঁড়াতেই পারেনি আরেক স্প্যানিশ জায়ান্ট অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। ৪-০ গোলে জিতেছে জার্মানরা।

অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনায় ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে ২৮ মিনিটে কিংসলে কোম্যানের গোলে লিড নেয় স্বাগতিকরা। ৪১ মিনিটে লেয়ন গোরেটজ্কা ব্যবধান দ্বিগুণ করে দলকে বিরতিতে নেন।

মধ্যবিরতির পর ফিরে ধারাটা ধরে রাখে বায়ার্ন। ৬৬ মিনিটে কোরেন্টিন তোলিস্সো এবং ৭২ মিনিটে কিংসলের দ্বিতীয় গোলে বড় জয় নিশ্চিত করে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা ধরে রাখার মিশনে নামা বায়ার্ন।