চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রিয়ালের সামনে নকআউটে যাওয়ার যত সহজ-কঠিন সমীকরণ

ঝামেলাটা বাঁধিয়েছে ইন্টার মিলান। কীভাবে যেন ঠিকই বরুশিয়া মনশেনগ্লাডবাখের মাঠে গিয়ে ২-৩ গোলের জয় নিয়ে ফিরে বসে আছে আন্তোনিও কন্তের শিষ্যরা। এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলে তাদের অবস্থান অবশ্য বদলায়নি, গ্রুপ ‘বি’তে চার দলের মধ্যে পড়ে আছে তলানিতে। কিন্তু তলে তলে ঠিকই আরেক দলের জন্য কুয়ো খুঁড়ে বসে আছে মিলানের দলটি, সেই কুয়োতে পতনের মাত্র এক কদম দূরে রিয়াল মাদ্রিদ!

আসলে ইন্টারকে দোষ নিয়ে লাভ নেই, নিজের পায়ে কুড়াল নিজেই মেরেছে রেকর্ড ১৩বারের চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ। গ্রুপ ‘বি’তে কাগজে-কলমে সবচেয়ে দুর্বল দল সেই শাখতার দোনেতস্কের কাছে দুইবার হেরেছে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। প্রথম দেখায় নিজেদের মাঠে ২-৩ গোলে হারের পর মঙ্গলবার অ্যাওয়ে ম্যাচেও ইউক্রেনে গিয়ে ২-০ ব্যবধানে হেরেছে লস ব্লাঙ্কোসরা।

বিজ্ঞাপন

ড্রয়ের পরই বোঝা যাচ্ছিলো ২০২০-২১ মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সবচেয়ে কঠিন লড়াইটা হতে যাচ্ছে গ্রুপ ‘বি’তে। শেষ ম্যাচের আগে আক্ষরিক অর্থে জল্পনাটাই সত্যি হয়েছে, রিয়াল-ইন্টারের মত দলকে পেছনে ঠেলে গ্রুপের শীর্ষে জার্মানির মনশেনগ্লাডবাখ। আর দুইয়ে, শাখতার দোনেতস্ক! তিনে রিয়াল, চারে ইন্টার। নক আউটে যাওয়ার সমান সুযোগ চার দলের সামনেই।

বিজ্ঞাপন

সমান সুযোগ যেহেতু, ১০ ডিসেম্বরের দুই ম্যাচ তাই চার দলের জন্য বাঁচা-মরার। মনশেনগ্লাডবাখের পয়েন্ট ৮, শাখতার ও রিয়ালের ৭ এবং সবার নীচে থাকা ইন্টারের ৬। ব্যাপারটা এমন হয়ে গেছে শেষ ম্যাচে যারাই জয় পাবে তারাই পাবে নকআউটের টিকিট। আর যদি ড্র হয়, তাহলে?

চার দলের মধ্যে মনশেনগ্লাডবাখের সমীকরণটা তুলনামূলক সহজ, রিয়ালের মাঠে তাদের ড্র হলেই চলবে। সেটা যেকোনো ব্যবধানে হলেই চলবে। ড্র হলেই তারা গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে খেলবে নকআউটে।

রিয়ালের জন্য সমীকরণ হচ্ছে, ১০ ডিসেম্বরের ম্যাচটা তাদের জিততেই হবে। এটাই তাদের জন্য এখন সবচেয়ে সহজ রাস্তা। জিতলে তারা মনশেনগ্লাডবাখকে পেছনে ঠেলে গ্রুপ সেরা হয়েই খেলবে পরের রাউন্ডে। হারা তো যাবেই না, ড্র হলেও কপালে আছে শনি। যদি ইন্টারের মাঠে কোনোভাবে জয় অথবা ড্র করেই ফেলে শাখতার তাহলে নকআউটে আর ওঠা হচ্ছে না ১৩বারের চ্যাম্পিয়নদের। কারণ গোল ব্যবধানে অনেক পিছিয়ে থাকলেও শাখতার এগিয়ে আছে এক জায়গায়, তারা দুবারই হারিয়েছে রিয়ালকে। তাই গোল ব্যবধানে পিছিয়ে থাকলেও সমান ৭ পয়েন্ট নিয়ে রিয়ালকে পেছনে ফেলে দুইয়ে আছে ইউক্রেনের ক্লাবটি। যদি শেষ ম্যাচে দুই দলই ড্র করে তাহলে এই মুখোমুখি এগিয়ে থাকার সুবিধা নিয়েই পরের রাউন্ডে খেলবে শাখতার।

ইন্টারের জন্য একটাই রাস্তা খোলা, জয়। আশার কথা হচ্ছে শাখতারের বিপক্ষে শেষ ম্যাচটা তাদের নিজেদের ঘরের মাঠে। যদি নিজ নিজ ম্যাচে ইন্টার আর রিয়াল জয় পায় তাহলে রিয়াল হবে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন আর ইন্টার রানার্সআপ। যদি ইন্টার জয় পায় আর মনশেনগ্লাডবাখ রিয়ালকে রুখে দেয় তাহলেও গোল ব্যবধানে পিছিয়ে থেকে রানার্সআপ হয়ে পরের রাউন্ডে যাবে ইন্টার।