চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রিয়ালের মিশন ৩০০ মিলিয়ন ইউরো

রিয়াল মাদ্রিদে যে বড় ধরনের পরিবর্তন আসছে সেটি দিবালোকের মতোই স্পষ্ট। ইতোমধ্যেই নতুন মৌসুম শুরুর আগে কাদের কাদের দলে টানা হবে তার একটি খসড়াও করে ফেলেছে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুর দলটি। সেজন্য মোটা অঙ্কের অর্থ প্রয়োজন পড়ছে রিয়ালের। স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক মার্কা’র মতে, সেই খরচ মেটাতে খেলোয়াড় বিক্রি করে ৩০০ মিলিয়ন ইউরো আয়ের মিশন নিয়ে আটঘাট বেঁধে নেমেছে ক্লাবটি।

দলের শক্তি বাড়াতে রিয়ালের প্রাথমিক লক্ষ্য হল নতুন খেলোয়াড় ক্রয়। সেজন্য চটজলদি এডার মিলিতাও এবং রদ্রিগোকে দলে টেনেছেন জিদান। অন্যদিকে এডেন হ্যাজার্ড, লুকা জোভিচ ও ফারল্যান্ড মেন্ডিকে দলে টানার পথে অনেকটাই এগিয়ে গেছে লস ব্লাঙ্কোসরা।

বিজ্ঞাপন

কেনা-বেচার শুরুতে ৯৫ মিলিয়ন ইউরো খচরও করে ফেলেছে রিয়াল মাদ্রিদ। হ্যাজার্ডকে কিনতে ১০০ থেকে ১১০ মিলিয়ন ইউরো ব্যয় করতে হবে। জোভিচের জন্য ৭০ এবং মেন্ডির জন্য খরচ হতে পারে ৪০ মিলিয়ন। পাশাপাশি পল পগবার মতো বড় খেলোয়াড় কিনলে সবমিলিয়ে ট্রান্সফার মার্কেটে রিয়ালকে ৪০০ মিলিয়ন ইউরোর মতো খরচ করতে হবে।

দলবদল মার্কেটের বিশাল ব্যয় বহন করার লক্ষ্যে ইসকো, হামেস রদ্রিগেজ এবং গ্যারেথ বেলকে বিক্রি করে দেয়ার পথে হাঁটছে রিয়াল। বিক্রি করে দেয়া সম্ভাব্য খেলোয়াড়ের তালিকায় রয়েছেন মাতেও কোভাচিচ, কেইলর নাভাস, লুকাস ভাসকুয়েজ, মারিয়ানো ডিয়াজ, বোর্হা মায়োরাল এবং থিও হার্নান্দেজ। এদের বিক্রি করতে পারলে ৩০০ মিলিয়ন ইউরো হাতে আসবে বলে আশাবাদী রিয়াল। ফলে সব ঢেলে সাজিয়ে শক্তিশালী স্কোয়াড গঠনের পথ সহজতর হবে রিয়ালের।

সদ্য শেষ হওয়া মৌসুমে খালি হাতে শেষ করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। লা লিগা, কোপা ডেল রের পাশাপাশি চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও বিবর্ণ ছিল লস ব্লাঙ্কোসরা। ব্যর্থতা ঝেড়ে আসন্ন ২০১৯-২০ মৌসুমে সফলতার মুখ দেখতে মরিয়া সান্তিয়াগো বার্নাব্যুর দলটি।

বিজ্ঞাপন