চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Group

রাশিয়া-বেলারুশের পক্ষে জোকোভিচ-নাভ্রাতিলোভা

Nagod
Bkash July

ইউক্রেনে রুশ বাহিনীর সামরিক অভিযানের কারণে উইম্বলডনে নিষিদ্ধ হয়েছে রাশিয়া ও বেলারুশের খেলোয়াড়রা। এ নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে অনেক কথাই চলছে। নোভাক জোকোভিচ, মার্টিনা নাভ্রাতিলোভা এবং ইউক্রেনীয় টেনিস তারকা এলিনা সভিটোলিনার বিষয়টিকে দেখছেন, অন্যায় হিসেবে।

অল ইংল্যান্ড ক্লাব জানিয়েছে, গ্রীষ্মকালীন আসরটিতে রুশ ও বেলারুশিয়ান খেলোয়াড়রা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অনুমতি পাবেন না। নিষেধাজ্ঞার ফলে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ বিশে থাকা পাঁচ টেনিস তারকার নামা হচ্ছে না উইম্বলডনে। ড্যানিল মেদভেদেভ ও আরিনা সাবালেঙ্কাকে ছাড়াই কোর্টে গড়াবে এবারের আসর।

চলতি বছর কোভিড টিকা নেওয়া না নেওয়া নিয়ে বিতর্কের কেন্দ্রে থাকা জোকোভিচ টুর্নামেন্ট কর্তৃপক্ষের এমন সিদ্ধান্তকে ‘পাগল’ বলে জানিয়েছেন।

২০ বারের গ্রান্ড স্ল্যামজয়ী সার্বিয়ান তারকা নিজ দেশের ইতিহাস জানিয়ে বলেছেন, ‘সর্বদা যুদ্ধের নিন্দা করব। আমি নিজেও যুদ্ধের শিশু, যুদ্ধকে সমর্থন করব না। তবে, উইম্বলডনের সিদ্ধান্ত সমর্থন করতে পারি না। আমি মনে করি এটা পাগলামি। যুদ্ধের সাথে খেলোয়াড়, টেনিস খেলোয়াড়, ক্রীড়াবিদদের কোনো সম্পর্ক নেই। রাজনীতি খেলাধুলায় হস্তক্ষেপ করলে ফলাফল ভালো হয় না।’

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে নাভ্রাতিলোভা দাবি করেছেন, রাজনীতি ‘টেনিস ধ্বংস’ করে দিচ্ছে। অল ইংল্যান্ড ক্লাবের সিদ্ধান্তে নিজেকে ‘বিধ্বস্ত’ মনে করছেন ১৮ বারের গ্রান্ড স্ল্যামজয়ী। নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি যখন জানতে পেরেছিলেন তখন তার চোখ ভিজে এসেছিল বলেও জানিয়েছেন।

চেক-আমেরিকান সাবেক টেনিস তারকা বলেছেন, ‘নিষেধাজ্ঞাটি সমগ্র বিশ্বের জন্য অন্যায়। অনেক খারাপ যাচ্ছে। আমি মনে করি এটি সহায়ক নয়। দলগুলির নিষেধাজ্ঞা পাবার কারণ বুঝি। কিন্তু ব্যক্তিগতভাবে মনে করি এটি ভুল।’

রুশ ও বেলারুশদের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে কথা বলেছেন ইউক্রেনের অন্যতম টেনিস তারকা এলিনা সভিটোলিনা। তিনি ইউক্রেনে আক্রমণ ও ভ্লাদিমির পুতিনের আগ্রাসনকে নিন্দা জানিয়ে দেশ দুটির ক্রীড়াবিদদের উইম্বলডনে খেলার অনুমতি চাইছেন।

অল ইংল্যান্ড ক্লাবের নেওয়া সিদ্ধান্তে মেয়েদের বিশ্ব টেনিসের শীর্ষ ২০-এ থাকা তিন ও ছেলেদের শীর্ষ ১০-এ থাকা দুই টেনিস তারকা অংশ নিতে পারবেন না উইম্বলডনে। ২৭ জুন থেকে টেনিসের আকর্ষণীয় গ্র্যান্ড স্লাম ইভেন্টটি কোর্টে গড়ানোর কথা।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের প্রতি আনুগত্য রয়েছে বেলারুশ সরকারের। রাশান খেলোয়াড়দের সাথে তাই দেশটির ক্রীড়াবিদরাও পড়ছেন নিষেধাজ্ঞায়। কাতার বিশ্বকাপ বাছাই ও মেয়েদের ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপের মতো আসর থেকেও নিষিদ্ধ করা হয়েছে বেলারুশ ক্রীড়াবিদদের।

আইটিএফ সম্প্রতি ডেভিস কাপ এবং বিলি জিন কিং কাপ থেকে রাশিয়া ও বেলারুশকে নিষিদ্ধ করেছে। সেখানে অবশ্য অন্যান্য খেলোয়াড়দের এটিপি এবং ডব্লিউটিএ ট্যুরে নিরপেক্ষ হিসাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অনুমতি পাচ্ছে। সেখানেও আছে বেশকিছু নিয়ম। এসব খেলোয়াড়রা নিজ দেশের জাতীয় পতাকা অথবা তাদের জাতীয় সঙ্গীত গাইতে পারবে না।

BSH
Bellow Post-Green View