চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রাম রহিমের ব্যাগ টেনে বরখাস্ত ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল

দুই নারী ভক্তকে ধর্ষণের মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর ভারতের কথিত ধর্মীয়গুরু ডেরা সাচ্চা সৌদা’র প্রধান গুরমিত রাম রহিম সিংয়ের ব্যাগ বহন করার দায়ে হরিয়ানা প্রদেশের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল গুরদাস সিং সালওয়ারাকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

শুক্রবার পঞ্চকুলার একটি আদালতে দোষী সাব্যস্ত করার পর বাবা রাম রহিম বের হওয়ার সময় আইনজীবীর পোশাক পরা অবস্থায়ই তাকে সাহায্য করতে ছুটে যান হরিয়ানার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আইনজীবী সালওয়ারা। ধর্ষক ওই ধর্মগুরুর হাত থেকে উজ্জ্বল কমলা রঙের একটি সুটকেস নিজের হাতে নেয়ার সময় বিভিন্ন গণমাধ্যমের ক্যামেরায় ধরা পড়েন তিনি।

ধারণকৃত ভিডিওচিত্রে ডেরা প্রধানকে সাদা পোশাকে দেখা যায়। তার সঙ্গে ছিলেন হানিপ্রীত নামের এক নারী, যাকে রাম রহিম নিজের পালক-কন্যা বলেন। তার হাতেও একটি ব্যাগ ছিল।

এনডিটিভি জানায়, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সালওয়ারা আদালত থেকে বের হওয়ার পর পুরোটা সময় রাম রহিম সিংয়ের সঙ্গে ছিলেন। দাবি করছিলেন, তিনি তার আত্মীয়।

বিজ্ঞাপন

হরিয়ানার অ্যাটর্নি জেনারেল বলদেব রাজ মহাজনের সুপারিশক্রমেই সালওয়ারাকে বরখাস্ত করা হয়। তিনি বলেন, ‘প্রমাণ পাওয়া গেছে যে, গুরদাস সিং সালওয়ারা রাম রহিমের সঙ্গী হিসেবে ছিলেন। একজন সরকারি কর্মচারি হিসেবে তিনি এ কাজ করতে পারেন না।’রাম রহিম-ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল

‘ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেলের ডেরার সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে,’ বলেন মহাজন।

এমনিতেই হরিয়ানা রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে রাম রহিম সিংকে বিশেষ সুবিধা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। তাকে পঞ্চকুলা থেকে বিশেষ হেলিকপ্টারযোগে রোহতাক জেলখানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে, শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত রুম দেয়া হয়েছে, বিশুদ্ধ খাওয়ার পানিরও ব্যবস্থা করা হয়েছে।

শুধু তাই নয়, রাম রহিমের সঙ্গে হানিপ্রীত এবং প্রয়োজনীয় সব লাগেজও নেয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে। রাজ্য সরকার যেখানে এসব অভিযোগ অস্বীকারের চেষ্টায় ব্যস্ত, সেখানে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সালওয়ারার এ ধরণের আচরণ সরকারকে আরও বেশি বিব্রত ও প্রশ্নবিদ্ধ করেছে বলেই তাকে বরখাস্ত করা হলো বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

বিজ্ঞাপন