চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রাতের রাজধানীতে ছিনতাইয়ের মচ্ছব

ছিনতাইয়ের শিকার সাংবাদিকসহ নানা পেশার মানুষ

যেন হুট করেই রাজধানীতে বিপজ্জনক মাত্রায় ছিনতাই বেড়ে গেছে। কখনো ছিনতাইকারীরা গলায় ছুরি ঠেকিয়ে, কখনো আবার আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে  টাকাপয়সা, মোবাইলসহ মূল্যবান সামগ্রী ছিনিয়ে নিচ্ছে। তাদের এই কাজে বাধা দিতে গিয়ে জীবনও হারাতে হচ্ছে নিরীহ মানুষকে।

গত এক সপ্তাহে ছিনতাইকারীদের কবলে পড়ছে সাংবাদিক, গীতিকার, বিজ্ঞাপন নির্মাতাসহ নানা পেশার মানুষ। ছিনতাইয়ের ঘটনায় ভুক্তভোগীদের থানায় মামলা করার পরামর্শ দিয়েছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

গতকাল (সোমবার) রাত একটার দিকে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানাধীন জাফরাবাদ এলাকায় ছিনতাইয়ের কবলে পড়েন দৈনিক ভোরের কাগজ পত্রিকার সিনিয়র রিপোর্টার দেব দুলাল মিত্র।

ছিনতাইয়ের শিকার দেব দুলাল জানান, রাতে ধানমন্ডির শংকর বাসস্ট্যান্ড থেকে পায়ে হেঁটে বাসায় ফিরছিলেন তিনি। পশ্চিম ধানমন্ডি জামে মসজিদ পার হওয়ার পর বিপরীত দিক থেকে রিকশা যোগে আসা দুই ছিনতাইকারী তার পথ অবরোধ করে। কিছু বুঝে ওঠার আগে এক যুবক গলায় ছুরি ধরে, অন্যজন পকেট থেকে মানিব্যাগ ও দুটি মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। মাত্র ৪০ সেকেন্ডের ব্যবধানে রিকশাসহ ছিনতাইকারীরা সটকে পড়ে।

এ বিষয়ে আজ মঙ্গলবার সকালে মোহাম্মদপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল লতিফ বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে, আশপাশের সিসি ক্যামেরা খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

চোখে মরিচের গুঁড়ো ছিটিয়ে সংবাদকর্মীর টাকা ছিনতাই
রাজধানীর মগবাজার রেললাইন ধরে রাতে বাসায় ফেরার পথে আরটিভির এক সংবাদকর্মীর চোখে মরিচের গুঁড়ো ছিটিয়ে তার টাকা নিয়ে গেছে ছিনতাইকারী।

সোমবার রাত ১১টার দিকে রেললাইন ধরে পায়ে হেঁটে বাসায় ফেরার পথে শাহীনূর মডেল হাই স্কুলের সামনে তিনি ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন।

মিথুন বলেন, ‘হঠাৎ পেছন থেকে এসে কেউ আমার চোখে শুকনো মরিচের গুঁড়ো ছিটিয়ে দেয়। মুহূর্তের মধ্যে আমার পকেটে থাকা ১৫ হাজার টাকা কেড়ে নেয়। প্যান্টের অন্য পকেটে থাকা মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করলেও আমার বাধার মুখে ব্যর্থ হয়।’

চিৎকার করে ছিনতাইকারীকে ধরার চেষ্টা করলেও পারেননি মিথুন। এরপর মগবাজার রেলক্রসিংয়ের কাছে এক দোকানে গিয়ে চোখে মুখে পানি দিয়ে যন্ত্রণা কমানোর চেষ্টা করেন।

ওই সময় আশপাশে অনেকে চলাচল করলেও চিৎকারে কেউ এগিয়ে যায়নি বলে জানান মিথুন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চ্যানেল আই অনলাইনকে মিথুন বলেন, চোখে-মুখে মরিচের গুড়োতে শারীরিকভাবে তিনি অসুস্থ।চোখ ও গলায় প্রচণ্ড ব্যথা আছে। একটু সুস্থ হয়ে তিনি আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

বিজ্ঞাপন

হাতিরঝিল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মহীউদ্দিন ফারুক বলেন, ‘আমরা ছিনতাইয়ের ঘটনাটি শোনার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছি। পুরো ঘটনাটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মগবাজার রেলগেইটে দুই সপ্তাহ আগে জাতীয় পুরস্কার পাওয়া গীতিকার আহমেদ রিজভীর কাছ থেকে ছুরি ঠেকিয়ে ৯০ হাজার টাকা দামের ফোন ও নগদ দশ হাজার টাকা নিয়ে যায় ছিনতাইকারীরা।

গত বুধবার রাত ১১টায় মগবাজার মোড়ে হেঁটে হেঁটে মোবাইল ফোনে কথা বলার সময় ছিনতাইয়ের শিকার হন বিজ্ঞাপন ও মিউজিক ভিডিও নির্মাতা মাহিন আওলাদ।

তিনি জানান, কোন কিছু বোঝার আগেই মোবাইলটা ছোঁ মেরে সটকে পড়েন ছিনতাইকারীরা।

গত ১৮ নভেম্বর ভোরে রাজধানীর মিরপুরের শাহ আলী এলাকায় ভোরে ছিনতাইকারীরা হত্যা করেন নড়াইলের ছেলে তুর্কি মুন্নাকে। মুন্নার স্বপ্ন ছিল উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে যাবেন। ১৫ দিনের ব্যবধানে ঢাকার সড়কে দুইবার তিনি ছিনতাইকারীদের কবলে পড়েন। প্রথমবার প্রাণে বেঁচে গেলেও তার মোবাইল ও সার্টিফিকেট নিয়ে যান ছিনতাইকারীরা। আর দ্বিতীয়বার ছিনতাইকারীদের হাতে খুন হন তিনি।

জানা যায়, মগবাজার রেললাইন সন্ধ্যা হলেই অন্ধকার হয়ে যায়। সেখানে রাতে প্রায়ই ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। সেখানকার আশপাশে রাজনৈতিক একটা সিন্ডিকেট কাজ করে। রাতে জুয়ার আসর বসে। এখানে বাড়ি-ঘর থাকলেও অনেক অবৈধ স্থাপনা রয়েছে, সেখানকার লোকজনই এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত।

এছাড়া শুধুমাত্র হাতিরঝিল এলাকা ছিনতাইকারীদের বড় দুটি গ্রুপের হাতে নিয়ন্ত্রিত। এদের মাধ্যমেই চলে মাদক ব্যবসা। ছিনতাইয়ে জড়িত বেশিরভাগই কিশোর বয়সের। বেকারত্ব ছাড়াও মাদকের কারণে ছিনতাইয়ে জড়ায় তারা।

স্থানীয়রা বলছে, এলাকায় পুলিশ টহল থাকলেও তারা নিরাপত্তা দিতে পারছে না। পুলিশের তৎপরতা বাড়ানো দরকার।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গণমাধ্যম ও জনসংযোগ বিভাগের উপ-কমিশনার মো. ওয়ালিদ হোসেন চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, ছিনতাইয়ের কবলে পড়লে মামলা করতে হবে। পুলিশকে না জানালে অপরাধীদের দমন করা যাবে না।

তিনি বলেন, প্রতিটি অপরাধ পর্যালোচনা সভাতেই ছিনতাই ঠেকানোর ওপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়। প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দেওয়া হয়। নিয়মিত নজরদারি ও টহল জোরদার করার কথাও বলা হয়েছে।

এলাকাভিত্তিক ছিনতাই দমনে, এলাকাভিত্তিক কমিউনিটি পুলিশিং আরো বাড়ানোর কথা বলছেন ভুক্তভোগী ও সাধারণ মানুষ।