চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রাজধানীর বাইরেও শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে পরিবহন শ্রমিকদের পাল্টা সড়ক অবরোধ

বাসচাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার প্রতিবাদে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন এলাকায় টানা চতুর্থ দিনের মতো বিক্ষোভ চলছে। এতে সমর্থন জানিয়ে ঢাকার আশপাশের এলাকার পাশাপাশি বাইরের কিছু এলাকাতেও শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ করেছে।

যাত্রাবাড়ী-শনির আখড়া
ঢাকার যাত্রাবাড়ী ও শনির আখড়ায় সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা। সকাল ৯টার দিক থেকেই স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের বর্ণমালা আদর্শ বিদ্যালয় ও কলেজ এবং দনিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সামনে রাস্তা বন্ধ করে বিক্ষোভ করতে দেখা যায়।

নারায়ণগঞ্জ
নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়ায় শহীদ মিনার সংলগ্ন গোল চত্বর এলাকায় ছাত্র-ছাত্রীরা রাস্তা বন্ধ করে বিক্ষোভ করছে। বুধবার সকাল সাড়ে দশটায় শহরের বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা মিছিল করে চাষাঢ়ায় এসে জড়ো হয়। নগরীর প্রধান সড়কগুলোর মুখে অবস্থান নিয়ে তারা রাস্তায় বসে ব্যারিকেড সৃষ্টি করে নানা দাবিতে শ্লোগান দিতে থাকে।সড়ক দুর্ঘটনা-বাসচাপায় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

এ সময় শিক্ষার্থীরা বঙ্গবন্ধু সড়ক, নবাব সলিমুল্লাহ সড়ক এবং ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে সব ধরনের যানবাহন চলাচল ব্যহত হলে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জের সড়ক পথের যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যায়। শিক্ষার্থীদের মিছিল শ্লোগানে উত্তাল হয়ে পড়ে নারায়ণগঞ্জ শহরের প্রাণকেন্দ্র চাষাঢ়া।

স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খানের পদত্যাগসহ ৯ দফা দাবিতে বিক্ষোভ করছে। চাষাঢ়ার মোড়সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। তবে এর মাঝেই বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছে শিক্ষার্থীরা।

Advertisement

নারায়ণগঞ্জে পরিবহন শ্রমিকদের পাল্টা বিক্ষোভ
রোববার দুই শিক্ষার্থীর নিহতের ঘটনায় যানবাহন ভাংচুরের প্রতিবাদে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা।সড়ক দুর্ঘটনা-বাসচাপায় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল ৮টা থেকে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা মহাসড়কে অবরোধ সৃষ্টি করে বিক্ষোভ শুরু করে। তারা এ সময় ভাংচুরের ঘটনার জন্য সরকারের কাছে নিরাপত্তা প্রদান ও সুষ্ঠু বিচারসহ ক্ষতিপূরণ দাবি করে। এ সময় তারা ঢাকামুখী সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়। এতে কয়েকশ’ যানবাহন আটকা পড়ে মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

যানজট এক পর্যায়ে মহাসড়কের সাইনবোর্ড থেকে কাঁচপুর পর্যন্ত বিস্তৃত হলে ভোগান্তিতে পড়েন বিভিন্ন গণপরিবহনের যাত্রীরা। এ সময় গণপরিবহনের যাত্রীদের কেউ কেউ এর প্রতিবাদ করলে পরিবহন শ্রমিকরা শিক্ষার্থীসহ কয়েকজনকে বেধড়ক পেটায়।সড়ক দুর্ঘটনা-বাসচাপায় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

পরে হাইওয়ে ও ট্রাফিক পুলিশসহ জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করলেও এখন পর্যন্ত যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়নি।

চট্টগ্রাম
এছাড়া দুই শিক্ষার্থী নিহতের প্রতিবাদে এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে চট্টগ্রামেও রাস্তা বন্ধ করে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করছে বলে খবর পাওয়া গেছে।