চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রবীন্দ্র সংগীত দিয়ে আমার গানের তালিম শুরু: সিঁথি সাহা

শিল্পীর দাবি: নতুন জেনারেশন যারা রবীন্দ্রনাথের গান থেকে দূরে তারা দুজনে দেখা হলো’ শুনলেই পছন্দ করবেন…

আধুনিক গান, লোকসংগীত ও চলচ্চিত্রের গান গেয়ে পরিচিতি পাওয়া কণ্ঠশিল্পী সিঁথি সাহা। শখের বশে গায়িকা বনে যাননি। শৈশব থেকে তিনি গানকে লালন করেছেন। ছোটবেলা থেকে গানের সঙ্গে ছিল তার মিতালি, নিয়মিত চর্চা করতেন। শৈশবে সিঁথি যখন গান শিখেছিলেন, তখন প্রথম গান শুরু করেছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গান দিয়ে।

রবীন্দ্র সংগীতের মাধ্যমে তার হাতে এসেছি বিভিন্ন সম্মাননা। ধ্রুব মিউজিকের ব্যানারে এই শিল্পীর নতুন রবীন্দ্র সংগীত ‘দুজনে দেখা হলো’ প্রকাশ হয়েছে রবিবার সন্ধ্যায়। নতুন করে গানটির সংগীতায়োজন করেছেন অমিত চ্যাটার্জি।

চ্যানেল আই অনলাইনকে সিঁথি সাহা বলেন, ছোটবেলায় আমার মূল শিকড় ছিল রবীন্দ্রনাথের গান। পেশাদার গায়িকা হওয়ার পর রবীন্দ্র সংগীত থেকে কিছুটা দূরে সরে গিয়েছি। এরপর আধুনিক বা সিনেমার গান বেশি করা হচ্ছে। আগে থেকেই আমার গলায় সবাই রবীন্দ্রনাথের গান শুনতে পছন্দ করতেন। এজন্য নতুন এই রবীন্দ্র সংগীত নিয়ে ইতিবাচক ফিডব্যাক পাচ্ছি।


তিনি বলেন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের গান আমার খুব পছন্দ। নিজের কাছে রোমান্টিক গান করতেও ভালো লাগে। আমি মনে করি, এটা আমার কণ্ঠের সঙ্গেও যায়। মূলত ভালো লাগা থেকে ‘দুজনের দেখা হলো’ গানটি বেছে নিয়েছি।

সিঁথি সাহার কণ্ঠে এবারের রবীন্দ্র সংগীতটি নতুন মোড়কে পাওয়া গেল। তিনি বললেন, মিউজিকের আয়োজন একটু অন্যরকম করেছি। রবীন্দ্র সংগীত গাইতে গেলে স্বরলিপি ঠিক রাখতে হয়। আমি শৈশব থেকে বিভিন্ন গুণী মানুষদের কাছ থেকে রবীন্দ্র সংগীতের তালিম নিয়েছি, চর্চা করেছি তাই স্বরলিপি থেকে বের হওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

বিজ্ঞাপন

‘জীবনে প্রথম রবীন্দ্রনাথের গান শিখেছি। এটা কোনো ইনটেনশনালি ছিল না। বড় হয়ে রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী হবো এমন কোনো ইচ্ছে তখন ছিল না। আমার মায়ের কাছ থেকে রবীন্দ্রনাথের গান ‘আজ ধানের ক্ষেত্রে রৌদ্র ছায়ায় লুকোচুরি খেলা’ শিখেছিলাম। আমি কুষ্টিয়ার মেয়ে। ছোট থেকে স্কুলে পড়া পর্যন্ত নিয়মিত লালনগীতি করতাম। এরপর যখন একটু একটু বুঝতে শিখলাম তারপর রবীন্দ্রনাথের গানের প্রতি ডিভোটেড হতে থাকি। গুরুজি অশোক সাহার কাছ থেকে তালিম নেয়া শুরু করেছিলাম।’

নতুন গান প্রসঙ্গে সিঁথি সাহা বলেন, গানটির স্বরলিপি ঠিক রেখে মিউজিকের গঠন কিছুটা পরিবর্তন করে মডার্ন করে গেয়েছি। এই শিল্পী মনে করেন, নতুন জেনারেশন যারা রবীন্দ্রনাথের গান থেকে দূরে তারা এটা শুনলেই পছন্দ করবেন।

‘দুজনে দেখা হলো’ গানটি চমৎকার ভিডিও নির্মাণ করেছেন শাহরিয়ার পলক। সিঁথি বলেন, ভিডিওতে শাড়িতে দেখা গেছে আমাকে। কিন্তু তার মধ্যেও একটা ওয়েস্টার্ন ব্যাপার রয়েছে। এছাড়া বাকি সবকিছু ব্লেন্ড করে নির্মাণ করা হয়েছে।

যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে যেভাবে রবীন্দ্র সংগীতটি উপস্থাপন করা যায়, ইয়াং জেনারেশনের পছন্দ হবে সেই চেষ্টা করেছেন সিঁথি সাহা।

বিজ্ঞাপন