চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

যেভাবে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরলেন তারা

একেই বলে কপাল। রাখে আল্লা, মারে কে? সিগনালটা হঠাৎ খুলে যাওয়ায় এই যাত্রায় প্রাণে বেঁচে গেলেন দুজন। 

কলকাতার ফ্লাইওভার ধসে পড়ার ভিডিওতে দেখা যায় হলুদ ও কালো পোশাক পড়া দুই যুবক হঠাৎ উল্টোপথে দৌড়াচ্ছেন প্রাণ হাতে নিয়ে। তারা তখনই রাস্তা পার হয়ে উত্তর থেকে দক্ষিণে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

বিজ্ঞাপন

কালীকৃষ্ণ ঠাকুর স্ট্রিটে হাওড়ার দিক থেকে গিরিশ পার্কগামী যানবাহন তখন সিগন্যালে আটকে। কিন্তু এর মধ্যেই খুলে যায় সিগনালটা। তাই হঠাৎ একটি কার এসে থামে সামনে। থমকে দাঁড়ান দুই যুবকও। এরপরেই সামনে হুড়মুড় করে ভেঙে পড়তে দেখেন ফ্লাইওভারটি। 

কালক্ষেপন না করে উল্টো দৌঁড় দেন দুজনেই। কোনোক্রমে বেঁচে চায়ের দোকানে এসে বসেন। তারপর দোকানী তাদের গরম দুধ খাওয়ালেও ধাতস্থ হতে তাদের বেশ খানিকটা সময় লেগে যায়। 

তাদের একজন ২৯ বছরের রাজকুমার সোনকর আর অন্যজন ১৯ বছরের মানব মালি। একজন টুকটাক পারিবারিক ব্যবসা সামলান আর অন্যজন কলেজে প্রথম বর্ষে পড়েন।

বিজ্ঞাপন

সেদিন দুপুরে রবীন্দ্র সরণি ধরে রাজকুমারের অসুস্থ ভাইকে দেখতে বিশুদ্ধানন্দ সরস্বতী হাসপাতালে যাচ্ছিলেন তারা। তখনই হঠাৎ ফ্লাইওভারটি ভেঙে পড়ে।

সন্ধ্যায় রাজকুমার আনন্দবাজার পত্রিকাকে বলেন, ছুটে চলে এলেও কয়েক পা দূরে গিয়ে প্রাণভয়ে কাঁপতে কাঁপতে রাস্তায় বসে পড়ি।

এরপর কয়েকজন পথচারী তাদের নিয়ে গিয়ে একটা চায়ের দোকানে বসান। গরম দুধ খেতে দেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর ইলোরা নস্কর দুই যুবককে সাহস জোগান। পরে তিনিই বাড়ি পৌঁছোনোর ব্যবস্থা করে দেন।

সাক্ষাত মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসার সৌভাগ্য সকলের হয় না। সেই ঘটনার চর্চাই এখন ভারতের গণমাধ্যমজুড়ে। দেখে নিন ফ্লাইওভার ধসে পড়ার মুহূর্তের সেই ভিডিওটি:

Bellow Post-Green View