চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্রে ‘মগজ খেকো’ অ্যামিবার সন্ধান

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে এক ধরনের বিরল ‘মগজ খেকো’ অ্যামিবার সন্ধান পেয়েছে দেশটির বিজ্ঞানীরা। এককোষী এই প্রাণীটি মানুষের শরীরে ঢুকতে পারলে মস্তিষ্ক ধ্বংস করে দেয়।

শুক্রবার ফ্লোরিডায় এক ব্যক্তি বিরল এই অ্যামিবায় আক্রান্ত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছে মার্কিন স্বাস্থ্য বিভাগ।

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, ‘নাইজেলরিয়া ফ্লাওয়ারি’ নামে এই অ্যামিবাটি পাওয়া গেছে হিলসবোরো কাউন্টিতে। তবে মস্তিষ্কের কোথায় আক্রমণ করে কিংবা আক্রান্ত রোগীর অবস্থা নিয়ে এখনো কোনো নির্দেশনা দেয়া হয়নি। অ্যামিবাটি ব্যক্তি থেকে ব্যক্তিতে সংক্রমণ ছড়াতে পারে না বলে নিশ্চিত করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

বিজ্ঞাপন

এককোষী এই অ্যামিবা খালি চোখে ধরা দেয় না। উষ্ণ পানির মাধ্যমে সাধারণত নাক দিয়ে মানুষের শরীরে প্রবেশ করে। কিন্তু নাক দিয়ে যদি কোনোভাবে শরীরে প্রবেশ করতে পারলেই মস্তিষ্ক ধ্বংস করে দেয়। এ আক্রমণে শিশু হলে তৎক্ষণাৎ মৃত্যু, প্রাপ্তবয়স্ক হলে খানিকক্ষণ খাবি খেয়ে প্রাণ ত্যাগ।

বিজ্ঞাপন

১৯৬২ সাল থেকে ফ্লোরিডায় অ্যামিবার ৩৭টি ঘটনার কথা শোনা গেছে। মারাত্মক ক্ষতিকর এই অ্যামিবা থেকে দূরে থাকতে সাঁতারের সময় বিশেষ সাবধানতা অবম্বলন করতে বলেছেন ফ্লোরিডার বিজ্ঞানীরা।

যুক্তরাষ্ট্রে ২০০৯ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে ৩৪ জন আক্রান্ত হয়েছে, তাদের মধ্যে ৩৪ জন আক্রান্ত হয়েছে সুইমিংপুলের পানি থেকে।

‘নাইজেলরিয়া ফ্লাওয়ারি’ পানির মাধ্যমে ছড়ায়। মস্তিষ্কে ঢুকে স্নায়ু ধ্বংস করে ফেলে। নদী, পুকুর, হ্রদ ও ঝরনার পানি যেখানে উষ্ণ, সেখানে এ ধরনের অ্যামিবা বাস করে। এছাড়া শিল্পকারখানার উষ্ণ পানি পড়ে এমন মাটি ও সুইমিংপুলেও এ ধরনের অ্যামিবার দেখা মেলে।

এ ধরনের অ্যামিবা মস্তিষ্কে ঢুকে পড়লে মারাত্মক কোনো উপসর্গ দেখা যায় না। প্রাথমিক অবস্থায় লক্ষণ থাকে হালকা মাথাব্যথা, ঘাড়ব্যথা, জ্বর ও পেটব্যথা। আক্রান্তদের বেশির ভাগ এক সপ্তাহের মধ্যে মৃত্যু হয়।