চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা চিকিৎসায় প্লাজমা ব্যবহারের অনুমোদন

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য প্লাজমা ব্যবহারের জরুরি অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ)।

এই পদ্ধতিতে করোনাভাইরাসে সংক্রমণ থেকে সুস্থ হওয়া ব্যক্তিদের অ্যান্টিবডি সমৃদ্ধ রক্তের প্লাজমা অসুস্থদের শরীরে প্রয়োগ করা হয়। এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে ৭০ হাজার মানুষের শরীরে প্লাজমা ব্যবহার করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, এতে মৃত্যুর পরিমাণ ৩৫ শতাংশ কমানো যায়।

বিজ্ঞাপন

এফডিএর বিরুদ্ধে রাজনৈতিক কারণে ভ্যাকসিন এবং চিকিৎসার চলমান পরিকল্পনা ব্যাহত করার অভিযোগ আনার একদিন পরেই এমন ঘোষণা দিলেন ট্রাম্প।

রোববার তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমি দীর্ঘদিন ধরে এটার অপেক্ষায় ছিলাম। চীনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াইয়ে সত্যিকারের ঐতিহাসিক ঘোষণা দিয়ে আমি খুশি। এর মাধ্যমে অগণিত জীবন বাঁচবে।

ট্রাম্প এই পদ্ধতিকে একটি শক্তিশালী থেরাপি হিসাবে বর্ণনা করেছেন এবং তিনি আমেরিকানদের কোভিড -১৯ থেকে সেরে উঠলে প্লাজমা অনুদানের জন্য এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

এফডিএ বলছে, প্রাথমিক গবেষণায় দেখা গেছে প্লাজমা মৃত্যুহার কমাতে পারে এবং রোগীদের স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে পারে যদি হাসপাতালে ভর্তির প্রথম তিন দিনের মধ্যে তা দেওয়া হয়।

সংস্থাটি বলছে, সম্প্রতি সংগৃহীত তথ্যগুলির ব্যাপক পর্যালোচনার শেষে বলা যাচ্ছে যে এটি নিরাপদ। তাছাড়া এটি ঝুঁকি হ্রাস করছে।

এফডিএর বায়োলজিক্স ইভালুয়েশন অ্যান্ড রিসার্চ কেন্দ্রের পরিচালক পিটার মার্কস রয়টার্সকে বলেন, জানা গেছে যে এটি নিরাপদ, আমরাও স্বচ্ছন্দ বোধ করছি। তেমন কোনো ঝুঁকিপূর্ণ লক্ষণ দেখতে পাইনি।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ অ্যান্থনি ফাউসিসহ আরো কিছু গবেষক আরো বেশি বেশি গবেষণার পরামর্শ দিয়েছেন।

গুরুতর অসুস্থ বা ক্লিনিকাল ট্রায়ালগুলিতে অংশ নেওয়া ব্যক্তিদের শরীরে এফডিএ ইতিমধ্যে নির্দিষ্ট শর্তে করোনাভাইরাস রোগীদের প্লাজমা ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে।

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর থেকে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১ লাখ ৮০ হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গিয়েছেন। দেশজুড়ে প্রায় ৫৮ লাখেরও বেশি মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত।