চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচন: ঝামেলার গন্ধ ও অনেক যদি

সুইং স্টেটসের বেশ কয়েকটি রাজ্যের ভোট গণনা শেষ হওয়ার আগেই রিপাবলিকান ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে নিজেকে বিজয়ী ঘোষণা করেছেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে: পেনসেলভেনিয়া, উইসকনসিন, জর্জিয়া, মিশিগান বা নর্থ ক্যারোলাইনার মতো রাজ্যগুলোর ভোটের ফলাফলের ওপরই নির্ভর হবে কে হচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট।

বিজ্ঞাপন

এ রাজ্যগুলোতে ভোট গণনা খুব ধীরে চলছে। জানা গেছে, ডাকযোগে পাঠানো ভোট গুণতেই এই অনাকাঙ্ক্ষিত দেরি।

ট্রাম্প এই কথা মানতে পারছেন না। তার আশঙ্কা, ভোটে কারচুপির চেষ্টা হচ্ছে। সে কারণে তড়িঘড়ি নিজের জয় ঘোষণা করে বসেছেন তিনি। তার ঘোষণা প্রত্যাখ্যান করে ডেমোক্র্যাটরা বলছে: সব ভোটই গুণতে হবে এবং তাদের বিশ্বাস তারাও জয়ের পথেই আছে। নির্বাচনের ফলকে বিতর্কিত করার উদ্দেশ্যে ট্রাম্প আগেভাগে জয় ঘোষণা করতে পারেন বলে কয়েক সপ্তাহ ধরেই ডেমোক্র্যাটরা বলে আসছিল। শেষ পর্যন্ত তাদের আশঙ্কাই সত্য প্রমাণিত হল।

বিজ্ঞাপন

এখন যদি সত্যি সত্যিই দুই দল নিজেদের বিজয় দাবি করে তাহলে কি হবে?
বিশ্লেষকরা বলছেন: ফলাফল নিয়ে এ ধরনের ঝামেলা বাধলে যুক্তরাষ্ট্রে নানান ধরনের আইনি ও রাজনৈতিক নাটকীয়তা দেখা যেতে পারে। সমাধানে পৌঁছাতে তখন সুপ্রিম কোর্ট, বিভিন্ন রাজ্যের প্রতিনিধি এবং কংগ্রেসের মিলিত সমাধানের দ্বারস্থ হতে হবে।মামলা যাবে সুপ্রিম কোর্টে

আগাম ভোটের তথ্য অনুযায়ী, ডেমোক্র্যাটরা রিপাবলিকানদের তুলনায় ডাকযোগে বেশি ভোট দিয়েছেন। পেনসেলভেনিয়া এবং উইসকনসিনের মতো রাজ্যগুলোতে নির্বাচনের দিনের আগে ‘মেইল-ইন’ ভোট গণনা শুরু করা যায় না।

এখন এসব রাজ্যে যদি হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয় এবং ব্যবধান হয় খুবই সামান্য তখন ভোট এবং ব্যালট গণনা নিয়ে মামলা হতে পারে।

আলাদা আলাদা রাজ্যে হওয়া সেসব মামলা স্বাভাবিকভাবেই তখন যাবে যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্টে। যেমনটা হয়েছিল ২০০০ সালে। সেবার শেষ পর্যন্ত জর্জ ডব্লিউ বুশ ডেমোক্র্যাট আল গোরকে ফ্লোরিডায় মাত্র ৫৩৭ ভোটে হারিয়েছিলেন। এবার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন সংক্রান্ত কোনো মামলা সুপ্রিম কোর্টে গেলে রায় শেষ পর্যন্ত রিপাবলিকানদের দিকে যেতে পারে বলে আশঙ্কা ডেমোক্র্যাটদের। কারণ নির্বাচনের মাত্র কয়েকদিন আগে ট্রাম্প বিচারক হিসেবে অ্যামি কনি বেরেটকে নিয়োগ দিয়েছেন। এর ফলে যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আদালতে রক্ষণশীলদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা এখন ৬-৩।

এসব নানা জটিল অংক শেষে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে এবার ডেমোক্রাট জো বাইডেন ক্ষমতায় বসবেন না পুনরায় রিপাবলিকান ট্রাম্পই থেকে যাবেন জানতে শুক্রবার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।