চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্রের কেনোশার ঘটনায় ভুল স্বীকার ফেসবুকের

যুক্তরাষ্ট্রের কেনোশায় বিক্ষোভের ঘটনার আগে সশস্ত্র গ্রুপের একটি পেজ ও ইভেন্ট অপসারণ করতে ব্যর্থ হওয়ার জন্য নিজের প্রতিষ্ঠান ফেসবুককে দোষ দিচ্ছেন সংস্থারটি প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ।

তিনি বলছেন যে, এটি একটি অপরাশেনাল ভুল ছিলো।

বিজ্ঞাপন

জাকারবার্গ বলেন, এই পেজ এবং ইভেন্টটি ফেসবুক পরিচালনার নীতি লঙ্ঘন করেছে৷ এই পেজ ও ইভেন্ট বিষয়ে হিংসাত্মক অসংখ্য অভিযোগ পাওয়ার পর তা সরানো উচিত ছিলো।

বিজ্ঞাপন

তবে মঙ্গলবার ঘটনার পরদিন কেনোশা গার্ড এবং ইভেন্টটি অপসারণ করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

জাকারবার্গ বলেন, আমাদের অপারেশনাল টিম প্রথম দিকে এই গ্রুপটাকে ঠিকভাবে শনাক্ত করতে পারেনি, যা আমাদের নীতির সঙ্গে যায় না। তবে পরে আমরা এটি সরিয়ে দিয়েছি।

বিজ্ঞাপন

যদিও জাকারবার্গ বলছেন যে, সশস্ত্র ব্যক্তিটি ফেসবুকের কেনোশা গার্ড অনুসরণ করেছে এমন কোনো প্রমাণ নেই, তবুও আমরা আমাদের নীতি লংঘন করে এমন বিষয়গুলোর সম্পর্কে আরো বেশি সতর্ক থাকার চেষ্টা করবো।

নিজের ফেসবুকে প্রকাশ করা এক ভিডিও বার্তায় জাকারবার্গ এবিষয়ে ব্যর্থতা স্বীকার করেছেন।

সম্প্রতি নিরস্ত্র কৃষ্ণাঙ্গ জেকব ব্লেকের ওপর পুলিশের গুলির প্রতিবাদে কেনোশায় ব্যাপক বিক্ষোভ হয়। এতে পুলিশের গুলিতে দু’জন নিহত এবং একজন আহত হয়।

রোববার জ্যাকব ব্লেককে পুলিশ গুলিবিদ্ধ করার পরে কেনোশায় বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এসময় বেসামরিক লোকদের সশস্ত্র বিক্ষোভে দেখা যায় এবং পরিস্থিতি উত্তপ্ত করে তুলে।

বিক্ষোভ ঠেকাতে কেনোশায়ে কারফিউ জারি করা হলেও, জনগণ তা উপেক্ষা করে বিক্ষোভে যোগ দেয়।

একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, গাড়িতে ওঠার সময় পুলিশ ব্লেকের ওপর একাধিকবার গুলি চালায়। তার শরীরে ৭টি গুলির ক্ষত রয়েছে। মেরুদণ্ড অকেজো হয়ে গেছে। ব্লেক আর কখনও হাটতে পারবে না বলে জানিয়েছেন তার চিকিৎসক