চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ম্যানইউ কিনতে সৌদি যুবরাজের বিশাল অঙ্কের প্রস্তাব

ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টার শহরের অর্ধেক দখলদারি সংযুক্ত আরব আমিরাতের সুলতান পরিবারের। বাকি অর্ধেক এবার দখল করতে চান সৌদি আরবের প্রিন্স।

ম্যানচেস্টার শহরের চিত্র হয়তো এ রকমই হয়ে যেতে পারে ফুটবল ঘিরে। ম্যানচেস্টার সিটির মালিক আবুধাবির রাজ পরিবারের মনসুর বিন জায়েদ আল নাহিইয়ান। যিনি আমিরাতের উপপ্রধানমন্ত্রীও।

বিজ্ঞাপন

এবার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কিনতে আগ্রহী সৌদি আরবের যুবরাজ ও উপপ্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ বিন সালমান। তার জন্য তিনি ৩৮০ কোটি পাউন্ড খরচ করতেও রাজি।

এই বিশাল অঙ্কের প্রস্তাব নিয়েই সরগরম ব্রিটেনের ফুটবল মহল। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বর্তমান মালিক যুক্তরাষ্ট্রের গ্লেজার পরিবার। সত্যিই যদি সৌদি রাজপুত্র এই দামে কেনেন ইউনাইটেডকে, তা হলে গ্লেজার পরিবারের লাভ হবে ২২০ কোটি পাউন্ড।

বিজ্ঞাপন

তাই বিশেষজ্ঞরা যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়েই দেখছেন সৌদি রাজ পরিবারের এই আগ্রহকে। সব ঠিকঠাক চললে আগামী মৌসুমেই ইউনাইটেডের নতুন মালিক হিসেবে দেখা যেতে পারে বিন সালমানকে।

সৌদি পরিবারের সম্পত্তির পরিমাণ ৮৫ হাজার কোটি পাউন্ড। সেখানে ৩৮০ কোটি পাউন্ড বড় কোনো ব্যাপার নয় তাদের কাছে। তাছাড়া ফুটবল ক্লাব কেনা মানে তার থেকে আয়ের সুযোগও থাকবে। এখন প্রশ্ন গ্লেজার পরিবার আদৌ বিক্রি করতে রাজি কি না?

ইউনাইটেডের কয়েকটি সূত্র এখনো অস্বীকার করেছে বিক্রির কথা। কিন্তু ব্রিটিশ মিডিয়া জানাচ্ছে, মার্কিন এই পরিবার ইউনাইটেডের জন্য অনেক দেনাও করে ফেলেছে। ১৪ বছর আগে ৭৯ কোটি পাউন্ডে ইউনাইটেডকে কিনেছিলেন তারা। কিন্তু তারপর দেনায় জর্জরিত হয়েছে ক্লাব। এই অবস্থায় সৌদি রাজ পরিবারের হাতে ক্লাব বিক্রি করার অর্থ রাতারাতি ২২০ কোটি পাউন্ড লাভের মুখ দেখা। অনেকের ধারণা যা অস্বীকার করা বেশ কঠিন গ্লেজারদের পক্ষে।

উল্টো দিকে বিন সালমান ইউনাইটেড কেনার ইচ্ছে দেখিয়েছিলেন গত অক্টোবরেই। তিনি সবচেয়ে বেশি আগ্রহী ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে টক্করে যেতে। যেখানে তার গৌরব ও সম্মানের লড়াই আসলে সংযুক্ত আরব আমিরাতে রাজ পরিবারের সঙ্গে। এর মধ্যেই ফর্মুলা ওয়ান এবং ডব্লিউডব্লিউই-তে বিনিয়োগ করেছে সৌদি আরব। এবার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের মতো নামী ক্লাব কিনে ফেললে নিজেদের জনপ্রিয়তার মধ্যে নিয়ে আসতে পারবেন বিতর্কিতি এই যুবরাজ।

উপসাগরীয় শেখদের অর্থে গত কয়েক বছর ধরে পাল্টে যাচ্ছে ইউরোপীয় ফুটবলের ছবি। পিএসজি, ম্যানচেস্টার সিটির পর এবার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডও হাঁটতে শুরু করেছে সেই পথে।