চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ম্যানইউর চাকরি নিয়ে অনুশোচনায় ভুগছেন না রালফ

ওলে গানার সলশেয়ারকে অব্যাহতি দেয়ার পর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেদের অন্তর্বর্তীকালীন কোচের দায়িত্ব নেন রালফ র‍্যাঙ্গনিক। তাতে ঘটেনি পরিস্থিতির কোনো পরিবর্তন। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ ষোলতে বাদ পড়ার পর দেখছে প্রিমিয়ার লিগে শেষ পাঁচে থাকা নিয়ে শঙ্কা। পয়েন্ট টেবিলে দলটির অবস্থানে রয়েছে সাতে।

আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলা তো সুদূর পরাহত বিষয়। টেবিলের শীর্ষ পাঁচে থেকে ইউরোপা লিগে খেলাটাও রয়েছে শঙ্কায়।

Reneta June

রোনালদোদের কোচ হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে আয়াক্সের দায়িত্বে থাকা এরিক টেন হাগ। গ্রীষ্মেই রেড ডেভিলদের ডেরা ছাড়বেন জার্মান কোচ র‌্যাঙ্গনিক। সর্বশেষ ১২ ম্যাচে তার অধীনে রেড ডেভিলরা জিতেছে কেবল তিনটি ম্যাচ।

বিজ্ঞাপন

ব্যর্থতার পাল্লা ভারি থাকার পরও ম্যানইউতে কোচের চাকরি নিয়ে বিন্দুমাত্র অনুশোচনায় ভুগছেন না রালফ। একইসঙ্গে তিনি বলছেন চাকরি নেয়াটা ছিল তার ভুল সিদ্ধান্ত।

গত শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘না, কোনো অনুশোচনা নেই। আমি এটা বারবার করতাম। একজন ম্যানেজার হিসাবে আমি মোটেও অনুশোচনা বোধ করি না। আপনাকে সবসময় প্রশ্ন করতে হবে এবং নিজেকে জিজ্ঞাসা করতে হবে যে আপনি কি আরও ভালো করতে পারতেন? যদি আমি নির্দিষ্ট কিছু খেলায় ভিন্ন ফরমেশনে খেলতে পারতাম, যদি বদলি আগে করা যেতো।’

‘আমি মনে করি আমরা সবাই এ বিষয়ে সচেতন যে এটা সহজ স্কোয়াড নয়। পুরো পরিস্থিতি সহজ ছিল না কিংবা আমি এখানে বসে থাকবো না এবং ওলে সম্ভবত এখনও এখানে থাকবে। আবার আমি মনে করি আমরা গত কয়েক মাসে দেখিয়েছি যে মান বাড়াতে সক্ষম হয়েছি। তবে একইসঙ্গে টেকসই উপায়ে হয়নি যা আমি চেয়েছিলাম। এই কারণেই আমরা যা করেছি এবং পেয়েছি তাতে আমি মোটেও খুশি নই।’

নতুন কোচ আগমনের আগে স্কোয়াড সম্পর্কে নিজস্ব মতামত বোর্ডের কাছে ইতোমধ্যে তুলে ধরেছেন রালফ র‍্যাঙ্গনিক। সেখানে তিনি জানিয়েছেন, দুই-একজন খেলোয়াড় প্রত্যাশা অনুযায়ী খেলতে পারছে না।

‘প্রত্যাশার মাত্রা বেশি এবং কিছু খেলোয়াড় এর সাথে তাদের নিজস্ব পারফরম্যান্সের সাথে লড়াই করছে বলে মনে হচ্ছে। তবে কোনো অজুহাত নেই। আমাদের এটি মোকাবিলা করতে এবং তার করার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।’