চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মৌলিক বিষয়ে গবেষণায় ঘাটতি আছে: পরিকল্পনামন্ত্রী

বিভিন্ন বিষয়ে মৌলিক গবেষণার ঘাটতি রয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

সোমবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলনকক্ষে ‘গবেষণার চূড়ান্ত ফলাফল উপস্থাপন সংক্রান্ত সেমিনার-২০২১’ শীর্ষক এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

পরিকল্পনা বিভাগের সামাজিক বিজ্ঞান গবেষণা পরিষদ এই সেমিনারের আয়োজন করেছে।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, জনবান্ধব অর্থাৎ প্রয়োজনের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ হলে গবেষণা কাজে অর্থ বরাদ্দ বাড়াতে সরকার প্রস্তুত। তবে এই মুহূর্তে ব্যতিক্রমী গবেষণা সীমিতভাবে করার পক্ষে সরকার।
তিনি বলেন, কচুরিপানা নিয়ে একবার বলেছিলাম গবেষণার প্রয়োজন আছে। এরকম একটা গবেষণা নিয়ে আসুন। সেখানে জ্যেষ্ঠ শিক্ষক, চার-পাঁচজন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ছিলেন। আমি সেদিন বলেছিলাম, কচুরিপানা নিয়েও কেন গবেষণা করা যাবে না? এটা নিয়ে এক সাংবাদিক বলেছিলেন যে, আমি কচুরিপানা খেতে বলেছি! সেজন্য প্রথমে যে কথাটা বলেছি, সাহস। সাহস আমাদের সংস্কৃতিতে কম। আমি ক্ষুদ্র মুখে বলছি এই বড় কথা। সাহস প্রদর্শন করতে হবে।’

তিনি বলেন, গবেষণা কাজে সবচেয়ে বড় সীমাবদ্ধতা রয়েছে স্বাধীনতার ও সাহসের। এই সীমাবদ্ধতা দূর করতে না পারলে ও অনেক প্রশ্ন করার সুযোগ না হলে ভালো মানের গবেষণা হবে না। এ ক্ষেত্রে বিশেষ করে তরুণ গবেষকদের এগিয়ে আসতে হবে।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘আমরা চাই, আরও অধিকতর গবেষণা হোক। কিন্তু সরকারি অর্থ ব্যয় করে কোনো অদ্ভুত বিষয়ে আমরা গবেষণা আশা করছি না। দৈনন্দিন বিষয়গুলো নিয়ে সরকারি ব্যয়ে গবেষণা করবেন।’

অনুষ্ঠানে পরিকল্পনা বিভাগের সচিব মোহাম্মাদ জয়নুল বারী বলেন, আর্থসামাজিক উন্নয়নে উচ্চপর্যায়ে শিক্ষাদানে জড়িতদের (শিক্ষকদের) গবেষণা সরকারের নীতি প্রণয়নে বেশ সহায়ক ভূমিকা রাখে।

বিজ্ঞাপন