চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মোদির ২০ লাখ কোটি টাকার প্যাকেজ পুনর্বিবেচনার দাবি রাহুলের

করোনাভাইরাস-ক্ষতিগ্রস্থ অর্থনীতির জন্য ২০ লক্ষ কোটি টাকার প্যাকেজটি নিয়ে পুনর্বিবেচনা করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গাান্ধী। 

শনিবার জুম ভিডিও কলের মাধ্যমে সাংবাদিকদের মাধ্যমে এ আহবান জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

কৃষক এবং অভিবাসীদের জন্য তাৎক্ষণিকভাবে ত্রাণ সরবরাহ করতে না পারা “ঋণের প্যাকেজ” সম্পর্কে এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন,  যদি সরকার এর পরিবর্তে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা না দেন তবে সামনে “বিপর্যয়কর সমস্যা” সৃষ্টি হতে পারে।

বিজ্ঞাপন

রাহুল গান্ধী বলেন: বর্তমানে আমাদের গরীব মানুষদের হাতে টাকা প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে এই প্যাকেজ (২০ লাখ কোটি) পুনর্বিবেচনা করার আর্জি জানাচ্ছি।

সরাসরি ব্যাঙ্ক টাকা পাঠানো, ২০০ দিনের জন্য মনরেগা এবং কৃষকদের সরাসরি টাকা পাঠানোর বিষয়ে তার ভাবনাচিন্তা করা উচিত। কারণ এই মানুষরাই আমাদের ভবিষ্যৎ।

বিজ্ঞাপন

এসময় তিনি কেরালার লোকসভার সাংসদ গত বছর সাধারণ নির্বাচনের প্রচারের সময় কংগ্রেস প্রস্তাবিত ন্যায় স্কিমটি তুলে ধরেন। যাতে সমাজের দরিদ্রতম শ্রেণির জন্য বার্ষিক ৭২ হাজার টাকা আয়ের সহায়তার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল।

কেন্দ্র সরকারকেও অনুরূপ পরিকল্পনা নিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে রাহুল বলেন, “রাস্তায় হাঁটতে থাকা অভিবাসী শ্রমিকের অর্থ দরকার, ঋণের দরকার নেই। যে কৃষক ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন তার অর্থ দরকার, ঋণ নয়। আমরা যদি তা না করি তবে এটি একটি বিপর্যয়কর সমস্যা হয়ে উঠবে।

রাহুল গান্ধি এই সপ্তাহেই প্রধানমন্ত্রী মোদিকে একই অনুরোধ করেছিলেন। লকডাউনের কারণে কর্মহীন হয়ে পড়ে থাকা অভিবাসীদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে “কমপক্ষে ৭,৫০০ টাকা” পাঠানোর অনুরোধ করেন।

এই মাসের শুরুর দিকেই নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ও রাহুল গান্ধির সঙ্গে আলোচনায় এই বিষয়টি তুলে ধরেছিলেন।

অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন: “আমি জনসংখ্যার ৬০ শতাংশের কথা বলছি, আমরা তাদের কিছু অর্থ দেব, আমার মনে হয় না তাতে খারাপ কিছু হবে না, যুক্তরাষ্ট্রও ঠিক এই পন্থাই নিয়েছে।