চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মোদির ভ্রমণ উপলক্ষে সাতক্ষীরা-গোপালগঞ্জে বিশেষ নিরাপত্তাব্যবস্থা

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাতক্ষীরা ও গোপালগঞ্জ ভ্রমণ উপলক্ষে বিশেষ নিরাপত্তার পাশাপাশি নতুন সাজে সাজানো হয়েছে বিভিন্ন স্থাপনা। ২৭ মার্চ সাতক্ষীরার শ্যামনগরে যশোরেশ্বরী কালীমন্দির ভ্রমণের পর গোপালগঞ্জে যাবেন মোদি। টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানানোর পর মোদি যাবেন কাশিয়ানীর শ্রী শ্রী পূর্ণব্রহ্ম হরিচাঁদ ঠাকুরের মন্দিরে পূজা দিতে। সেখানে মতুয়া সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিদের সাথে কথাও বলবেন তিনি।

বিশ্বব্যাপি ৫১টি শক্তিপীঠের মধ্যে একটি সাতক্ষীরার শ্যামনগরের যশোরেশ্বরী কালীমন্দির। প্রায় সাড়ে ৪শ বছর পূর্বের এই প্রাচীন মন্দিরটি পরিদর্শন করবেন নরেন্দ্র মোদি। মোদির আগমনকে কেন্দ্র করে প্রাচীন মন্দিরটির সংস্কারের পাশাপাশি, ঈশ্বরীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে নির্মাণ করা হয়েছে ৩টি হেলিপ্যাড। সেখানে বিশেষ ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানান খুলনা বিভাগের ডিআইজি ড. খন্দকার মহিদ উদ্দীন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

সাতক্ষীরার যশোরেশ্বরী কালীমন্দিরে পূজা-অর্চনা ও পরিদর্শন শেষে মোদি যাবেন গোপালগঞ্জে। সেখানে টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানাবেন তিনি। সাথে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর ওড়াকান্দির শ্রী শ্রী পূর্ণব্রহ্ম হরিচাঁদ ঠাকুরের মন্দিরে পূজা দিতে যাবেন নরেন্দ্র মোদি। সেখানে মতুয়া সম্প্রদায় তাকে ডঙ্কা কাশা ও উলুধ্বনির মাধ্যমে বরণ করবেন বলে জানান ঠাকুর পরিবারের সন্তান পদ্মনাথ ঠাকুর। নরেন্দ্র মোদির জন্য নতুন সাজে সাজানো হয়েছে গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সমাধি ও হরিচাঁদ ঠাকুরের মন্দির। কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছে বলে জানান গোপালগঞ্জের পুলিশ সুপার আয়শা সিদ্দিকা।

নরেন্দ্র মোদির আগমনকে উপলক্ষ্যে বিশ্বব্যাপি স্বীকৃতি পাবে সাতক্ষীরার যশোরেশ্বরী কালীমন্দির এবং গোপালগঞ্জের ওড়াকান্দির হরিচাঁদ ঠাকুরের মন্দির। এমনটাই প্রত্যাশা দুই জেলাবাসীর।