চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মেহেরপুরে নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ২

মেহেরপুরের গাংনী উপজেলায় আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে (ইউপি) দুই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে দুইজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৩০ জন।

সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ধলা গ্রামে এ সংঘর্ষ ঘটে বলে নিশ্চিত করেছেন মেহেরপুরের পুলিশ সুপার রাফিউল ইসলাম।

হতাহতদের গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক বিডি দাস জাহারুল ও সাহারুল নামে দুইজন নিহত হয়েছে। নিহতরা দুইজনই আপন ভাই।

বিজ্ঞাপন

এই ঘটনায় ধারলো অস্ত্রের আঘাতে আরও ৩০ জন আহত হয়েছে। আহতদের অনেককে কুষ্টিয়া, রাজশাহী এবং মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে এই ইউনিয়নের নির্বাচন। সকাল ১০ টার দিকে আসন্ন নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী দুই প্রার্থী আতিয়ার ও টুটুল গ্রুপের লোকজন ভোট চাইতে রাস্তায় নামে। তখন ভোট চাওয়াকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের লোকজনের মধ্যে কথাকাটি শুরু হলে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়। এই সময় উভয়পক্ষ ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে ঘটনাস্থলেই দুইজন ধারালো অস্ত্রের আঘাতে নিহত হয়। এই সময় আহত হয় দুই গ্রুপের ২৫-৩০ জন কর্মী সমর্থক।

পুলিশ সুপার আরও জানান, ভোট চাওয়াকে কেন্দ্র করে আকস্মিক সংঘর্ষের ঘটনায় দুইজন নিহত হয়েছে। গ্রামের বর্তমানে মেম্বার এবং নতুন মেম্বার প্রার্থীর সমর্থখদের মধ্যে ঘটে এই সংঘর্ষ। পরিস্থিতি শান্ত করতে গ্রামে বিপুল পরিমান পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনার সূত্রপাত এবং দোষীদের খুঁজে তাদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশ মাঠে নেমেছে।

মেহেরপুর কাথুলী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সাজেদুর রহমান রানা বলেন, তার ইউনিয়নের ধলা গ্রামে ভোট চাওয়াকে কেন্দ্র করে এই ঘটনা। গ্রামে এখন শান্ত অবস্থা বিরাজ করছে। তবে এই ঘটনা ইউনিয়নের ইউপি নির্বাচনের শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতির উপর বিরুপ প্রভাব ফেললো। এতে নির্বাচনে ভোটারদের উৎসাহ কমে যাবে বলে আশঙ্কা করা যাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন