চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মেসির গতিতে হেরেই অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বেকহ্যাম

মাঠে কিংবা মাঠের বাইরে, সবসময়ই তারকাখ্যাতি উপভোগ করেছেন ডেভিড বেকহ্যাম। খেলার সময় কঠিন লড়াই, জয়ের পর নম্র আর ভদ্র থাকা, হারকে সহজে মেনে নেয়ার মতো দারুণ সব গুণ ছিল সাবেক ইংল্যান্ড অধিনায়কের।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, লা লিগা, সিরি আ, আর লিগ ওয়ানে দারুণ সময় কাটানো বেকহ্যাম খুলে বসেছেন স্মৃতির ঝাঁপি। বলেছেন, খেলোয়াড় হিসেবে নিজের প্রিয় আর দুঃস্মৃতিগুলো নিয়ে।

বিজ্ঞাপন

কখন অবসর নেয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন? এমন প্রশ্নে বেকহ্যামের উত্তর, বার্সেলোনার এক খেলোয়াড়ের কাছে হেরেই বুটজোড়া তুলে রাখার সিদ্ধান্ত নেন পাকাপাকিভাবে। সেই খেলোয়াড়টি কে সেটা না বোঝার অবশ্য কোনো কারণ নেই!

বিজ্ঞাপন

২০১২-১৩ মৌসুমে বেকহ্যাম খেলেছেন ফরাসি ক্লাব পিএসজির হয়ে। সেবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে বার্সেলোনার মুখোমুখি হয় তার দল।

ত্রিশোর্ধ্ব বেকহ্যামকে সেবার বেশ নাকানিচুবানি খাওয়ান ২৫ বছর বয়সী মেসি। বার্সা তারকার সেই গতির কাছে হেরেই ইংলিশ তারকা সিদ্ধান্ত নেন ফুটবল আর নয়!

বিজ্ঞাপন

‘মেসি যখন আমাকে পার হয়ে গেল, তখনই বোধহয় ফুটবল ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেই। আমরা ম্যাচে এগিয়ে ছিলাম। এরপর মেসি নামলো আর বার্সা গোল পেয়ে গেল।’

‘অথচ এর আগ পর্যন্ত আমি আমার খেলা নিয়ে সন্তুষ্টই ছিলাম। দল ভালো খেলছিল, আমি আমার খেলা নিয়ে গর্বিত ছিলাম।’

মেসির খেলায় মুগ্ধ বেকহ্যাম এখন নিজেই এক ক্লাবের মালিক। মার্কিন লিগে ইন্টার মিয়ামি নামে এক ক্লাব আছে তার। আর্জেন্টাইন মহাতারকা কোনো একদিন তার দলে নাম লেখাবেন সেই আশাতে আছেন বেকহ্যাম।

‘অনেক মালিকের মতোই আমিও চাই সেরা খেলোয়াড়দের দলে টানতে। যদি সম্ভব হয় লিও কিংবা ক্রিস্টিয়ানোদের মতো খেলোয়াড় আমরা দলে আনতে চাই।’

‘একজন অ্যাথলেট হিসেবে আমি দুইজনের বেশ প্রশংসা করি। এই দুই খেলোয়াড়কে দলে পেলে দারুণই হবে।’