চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মেকং অঞ্চলে বানর ও কুমিরের নতুন প্রজাতির সন্ধান

বৃহত্তর মেকং অঞ্চল থেকে ২২৪টি নতুন প্রজাতি প্রাণীর একটি তালিকা প্রকাশ করেছেন ওয়ার্ল্ড ওয়াইল্ডলাইফ ফান্ড। এই অঞ্চলে বিশ্বের সবচেয়ে বিপন্ন প্রজাতির কিছু প্রাণির সন্ধান পাওয়ার আগেই বিলুপ্ত হয়েছে। এবার বিপন্ন হতে যাওয়া দুটি প্রজাতির সন্ধান মিলল। যাদের একটি কুমিরের গোত্রের প্রজাতি নিউট, অন্যটি বানর গোত্রের পোপা লাঙ্গুর বানর।

বিবিসি জানায়: ডব্লিউডব্লিউএফ-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পোপা লাঙ্গুর বানরের চোখের চারপাশে ভূতুড়ে সাদা বৃত্ত রয়েছে। বড় মাথার ব্যাঙ, রেসিং স্ট্রাইপ সহ একটি নিউট, যা একটি কুমির নিউট নামেও পরিচিত।

Reneta June

বন্যপ্রাণী এবং বন্যপ্রাণী অপরাধের জন্য ডব্লিউডাব্লুএফ-গ্রেটার মেকং-এর আঞ্চলিক নেতৃত্বে থাকাকে যোগানন্দ রয়টার্সকে বলেছেন, এই প্রজাতিগুলি লক্ষ লক্ষ বছরের বিবর্তনের অসাধারণ ও সুন্দরতম নির্দশন।

বিজ্ঞাপন

মেকং অঞ্চলের মধ্যে থাকা কম্বোডিয়া, লাওস, মায়ানমার, থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনামে প্রায়ই এমন বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির সন্ধান মেলে। কর্মকর্তারা বলেন, এই প্রজাতিগুলি “তীব্র হুমকির মধ্যে” আছে। এমনকি তাদের মাঝে কিছু প্রজাতির সন্ধান পাওয়ার আগেই বিলুপ্ত হয়েছে”।

ওয়ার্ল্ড ওয়াইল্ডলাইফ ফান্ড বলেছে, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সমৃদ্ধ জীববৈচিত্র্যপূর্ণ এলাকায় প্রজাতির ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। বন্যপ্রাণীর অবৈধ ব্যবসা, আবাসস্থল ধ্বংস, মানুষের দ্বারা রোগের প্রবর্তন তাদের টিকে থাকা হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে।