চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মুক্তবিহঙ্গের ‘অমৃতের সন্ধানে’ নাটক থেকে পঞ্চাশ হাজার টাকা অনুদান

কানাডার আলবার্টা প্রদেশের ক্যালগেরিতে উদ্যমী ও সংস্কৃতিমনস্ক কিছু বাঙালি তরুণ-তরুণীদের নিয়ে মুক্তবিহঙ্গের পথ চলা শুরু।

নাটকসহ বাংলা সংস্কৃতির বিভিন্ন মাধ্যম নিয়ে চর্চা এবং এর মাধ্যমে বিভিন্ন সামাজিক ইস্যু নিয়ে জনসচেতনতা তৈরী-মূলত এই উদ্দেশ্যেই মুক্তবিহঙ্গ শুরু থেকে কাজ করে যাচ্ছে। বিগত তিন বছরে তারা একে একে সফলভাবে মঞ্চায়িত করেছে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর নৃত্যনাট্য শ্যামা, ফরাসি নাট্যকার ইউজিন আইনেস্কোর ‘লিডার’ ও মলিয়ের এর ‘জর্জ দাঁদ্যা’। মুক্তবিহঙ্গের পরিবেশনায় ভিন্ন আঙ্গিকের এই নাটকগুলো ক্যালগারির নাট্যানুরাগী দর্শক মহলে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়।

বিজ্ঞাপন

এই আয়োজনগুলো থেকে প্রাপ্ত সকল অর্থ তারা ঢাকায় অবস্থিত মায়ের আঁচল নামক একটি পথশিশু সংস্থায় দান করে। অটিজম কি এবং এ বিষয়টি নিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি – এই উদ্দেশ্যটিকে সামনে নিয়ে মুক্তবিহঙ্গ এ বছর ‘অটিজম ক্যালগারি’ র সহযোগিতায় একটি সেমিনারের আয়োজন করে, পাশাপাশি ক্যালগাররি রেড এফ.এম রেডিও স্টেশনে ঘন্টাব্যাপী এক আলোচনায় অংশ নেয় ।

বিজ্ঞাপন

সেই সাথে অন্যান্য বছরের মতো তাদের মূল আয়োজন মঞ্চ নাটকের জন্য তারা বেছে নেয় বিখ্যাত লেখক ফ্রান্জ কাফকার অমর সৃষ্টি ‘মেটামরফসিস’ অবলম্বনে শ্রী অসীম দাস সম্পাদিত ‘অমৃতের সন্ধানে’। নাটকটি দর্শর্নীর বিনিময়ে এই পরিবেশনা থেকে প্রাপ্ত সকল অর্থ তারা ঢাকায় অবস্থিত একটি অটিজম সেন্টারে দান করে।

ঢাকায় মুক্তবিহঙ্গের প্রতিনিধি ডক্টর সুফিয়া ইসলাম ‘অটিজম সেন্টার’ কে পঞ্চাশ হাজার টাকার একটি চেক তুলে দেয়ার সময় এক সাক্ষাৎকারে জানান “মুক্তবিহঙ্গ কে অশেষ ধন্যবাদ এরকম একটি মহতী উদ্যোগ নেয়ার জন্য, সুদূর প্রবাসে অবস্থান করেও বাংলাদেশের অটিস্টিক শিশুদের জন্য তাদের এই প্রয়াস সত্যিই হৃদয়স্পর্শী”

মুক্তবিহঙ্গের সহ-প্রতিষ্ঠাতা অভিজিৎ সাহা জানান এরকম একটি উদ্যোগ এর সঙ্গে জড়িত থাকতে পেরে তিনি অত্যন্ত গর্বিত, একটি একান্ত আলাপচারিতায় মুক্তবিহঙ্গের প্রতিষ্ঠাতা-পরিচালক জাহিদ হক উত্তরোত্তর আরো ভালো মানের নাটক প্রযোজনা এবং এর মাধ্যমে বিভিন্ন সামাজিক ইস্যুতে সচেতনতা তৈরি নিয়ে তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা জানান।

ক্যালগারির সাংস্কৃতিক অঙ্গনে মুক্তবিহঙ্গ একটি জনপ্রিয় ও প্রতিষ্ঠিত নাম, নাট্যচর্চার মাধ্যমে প্রবাসে বাংলা সংস্কৃতির এই সুবাতাসকে তারা আরো বেগবান করবেন-এমন আশা করা যেতেই পারে।