চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মিশরে বঙ্গবন্ধুর জীবন-কর্ম নিয়ে আন্তর্জাতিক সেমিনার

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের অংশ হিসেবে মিশরের রাজধানী কায়রোতে উৎসবমুখর পরিবেশে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের উপর আন্তর্জাতিক বিশেষ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে কায়রোর হোটেল শেরাটনের বলরুমে আয়োজিত সেমিনারে মিশরে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মনিরুল ইসলাম সেমিনারে আগত অতিথিদের উদ্দেশে স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

তিনি বাংলাদেশ তথা বাঙালি জাতির উত্থানে বঙ্গবন্ধুর জীবনব্যাপী অবদান এর ওপর আলোচনা অংশ নেয়ার আহ্বান জানান।

সেমিনারে মিশরে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবী ডক্টর ইসাম আব্দেল আজিজ সরাফ বলেন, বঙ্গবন্ধুর সংগ্রাম, নিজ মাতৃভূমির জন্য আত্মত্যাগ, নয় মাসের স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশের অভ্যুদয় সম্পর্কে পড়াশোনা  করা উচিত।  এতে বর্তমান প্রজন্ম অনুপ্রেরণা লাভ করতে পারে।

সেমিনারে কায়রো ব্রিটিশ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডক্টর শেখ শামীম হাসনাইন এর মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ এর প্রেক্ষাপট প্রভাব ও স্বাধীনতার ঘোষণার ব্যাখ্যা করেন।

বিজ্ঞাপন

নিবন্ধনটি উপস্থাপন করেন বিশ্ব বিখ্যাত আল-আজহার আল শরীফের সর্বোচ্চ ওলামা পরিষদ এর ডাইরেক্টর জেনারেল মাহমুদ সেদকি আল- হাওয়ারি।

তিনি বাঙালি জাতির স্বাধিকার এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে ব্যক্তি মুজিবের অবিস্মরণীয় অবদান এর তাৎপর্য তুলে ধরেন।

এছাড়া ব্রিটিশ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক লিলা কিটি পুমফেরি তার আলোচনায় ‘সবার সাথে বন্ধুত্ব কারো সাথে শত্রুতা নয়’ বঙ্গবন্ধুর এই বিখ্যাত বাণী তাৎপর্য , প্রয়োগ এবং পরবর্তীতে তারই কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক বাস্তবায়নের দৃষ্টান্ত ও সাফল্য বর্ণনা করেন।

মিশরে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত মনিরুল ইসলাম জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী তাৎপর্যের উপর বক্তব্য উপস্থাপন করেন।

বক্তব্যের শুরুতেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের গৌরবোজ্জ্বল স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

তিনি জাতির পিতার আদর্শের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে একটি সুখী সমৃদ্ধ উন্নত বাংলাদেশ গড়ার কাজে প্রত্যেককে তার নিজ নিজ অবস্থান থেকে সর্বাত্মক আত্মনিয়োগ করার আহ্বান জানান।