চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Group

মিরাজের চট্টগ্রামকে হারাল সাকিবের বরিশাল

বঙ্গবন্ধু বিপিএল-২০২২

বিজ্ঞাপন

বিপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে ৪ উইকেটে হারিয়েছে ফরচুন বরিশাল। ১২৬ রানের লক্ষ্য ৬ উইকেট হারিয়ে ৮ বল হাতে রেখে তাড়া করে সাকিব আল হাসানের দল। দারুণ বোলিং করেছেন চট্টগ্রামের অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজ। এ অফস্পিনার ৪ উইকেট নিলেও তার দলকে পেতে হয়েছে হারের স্বাদ।

মিরাজের একটি ওভার বদলে দিয়েছিল ম্যাচের গতিপথ। জয়ের দিকে ছুটতে থাকা বরিশাল ১৫তম ওভারে হারায় তিন উইকেট। মিরাজের জোড়া শিকারের পর একজন হন রান আউট। ৫ বলের ব্যবধানে ৩ উইকেট হারালে জয়ের পথ কঠিন হয়ে যায় দলটির।

pap-punno

জিয়াউর রহমানের ১২ বলে ১৯ রানের ঝড়ো ইনিংসে সহজেই জয়ের বন্দরে নোঙর করে আসরের অন্যতম ফেভারিট দল। ১০ বলে ১২ রান করে অপরাজিত থাকেন ডোয়াইন ব্রাভো।

সাকিবদের জয়ে বড় ভূমিকা রাখেন সৈকত আলী। এ ওপেনার খেলেন ৩৯ রানের ইনিংস। দলকে জয়ের কাছে এনে দিয়ে আউট হন। তার ৩৫ বলের ইনিংসে ছিল একটি চার ও দুটি ছয়ের মার।

মিরাজ ৪ ওভারে ১৬ রানে নেন ৪ উইকেট। টি-টুয়েন্টিতে অফস্পিনার এটিই ক্যারিয়ারসেরা বোলিং। নাজমুল হোসেন শান্তকে বোল্ড করে শুরুর উইকেটটি নেন মিরাজই। পরে সাকিবকে বোল্ড করেন। নিজের শেষ ওভারে টানা দুই বলে তুলে নেন সৈকত ও ইরফান শুক্কুরের উইকেট।

Bkash May Banner

মিরপুরে বরিশালের বিপক্ষে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নামা চট্টগ্রাম ৮ উইকেটে ১২৫ রানের বেশি করতে পারেনি। বিপিএলের অষ্টম আসরের শুরুটা হয় ছক্কা দিয়ে। চ্যালেঞ্জার্স ওপেনার কেনার লুইস ফরচুন অফস্পিনার নাঈম হাসানকে প্রথম বলেই সোজা ব্যাটে মারেন বিশাল এক ছক্কা।

এক বল পর অবশ্য লং-অনে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ক্যারিবিয়ান তারকা। পরে চলতে থাকে চট্টগ্রাম ব্যাটারদের আসা-যাওয়া। আলঝারি জোসেফের বলে গ্লান্স খেলতে গিয়ে স্কয়ার লেগে ইরফান শুক্কুরের হাতে ধরা পড়েন আফিফ হোসেন ধ্রুব। সাকিব আল হাসানের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন ৮ রান করা সাব্বির রহমান। জ্যাক লিনট্টের বলে একইভাবে সাজঘরে ফেরেন ১৬ রান করা উইল জ্যাকস।

অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজও ব্যাট হাতে সুবিধা করতে পারেননি। ২০ বল খরচায় ৯ রান করেছেন। নাঈম হাসানের বলে ডাউন দ্য উইকেটে এসে উড়িয়ে মারতে চেয়েছিলেন। ডিপ মিডঅনে লিনট্টের তালুবন্দি হন। জোসেফের বাউন্সারে পরাস্ত হন শামীম পাটোয়ারি।

পুল খেলতে গিয়ে ডিপ স্কয়ার লেগে সালমানের হাতে ধরা পড়েন। তার উইলো থেকে আসে ১৪ রান। দলীয় স্কোর তখন ৬ উইকেটে ৬৩।বিপর্যস্ত অবস্থা থেকে চট্টগ্রামকে খানিকটা টেনে তোলেন বেনি হাওয়েল। ২০ বলে ৩ চার ও ৩ ছক্কার মারে খেলেন ঝড়ো ৪১ রানের ইনিংস।

একশ রানের গণ্ডি পার হয় বন্দরনগরের দলটি। বরিশালের পক্ষে ৩২ রানে ৩ উইকেট নেন জোসেফ। নাঈম ২টি এবং একটি করে উইকেট পান সাকিব, লিনট্ট ও ব্রাভো।

বিজ্ঞাপন

Bellow Post-Green View