চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মালয়েশিয়ার কারাগা‌রে এক হাজার বাংলাদেশী শিশুর লেখাপড়ার ব্যবস্থা

২০১৪ সালে মালয়েশিয়ার সাগরে বাংলাদেশী মালিকানাধীন একটি জাহাজ থেকে উদ্ধার করা হয় ১ হাজারেরও বাংলাদেশী শিশুকে। ওই শিশুদের বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পাচার করা হচ্ছিল। তাদের লেখাপড়ার ব্যবস্থা করেছে মালয়েশিয়ার মানবাধিকার কমিশন।

সাগর পথে এত শিশু একসঙ্গে উদ্ধারের ঘটনা এর আগে খুব একটা হয়নি মালয়েশিয়ায়। অজ্ঞাত একটি ফোন থেকে এই পাচারের ঘটনা জানানো হয়েছিল মালয়েশিয়া পুলিশকে। উদ্ধারের পর জানা যায়, এদের প্রায় সবাই বাংলাদেশী শিশু। মালয়েশিয়ার মানবাধিকার কমিশন এ নিয়ে কথা বলতে চাননি কারণ এখনো গোয়েন্দা সংস্থাগুলো শিশু পাচারের ঘটনাটির তদন্ত চালাচ্ছে। তবে বলেছে, মামা, চাচা আর খালা পরিচয়ে অভিভাবক সেজে ওই শিশুদের পাচার করা হচ্ছিল।

মালয়েশিয়ার মানবাধিকার কমিশনের কমিশনার জেমস দেভ নাগাম বলেন, অধিকাংশ শিশুই বাংলাদেশী। এদের মধ্যে স্কুল শিক্ষার্থীর সংখ্যাও কম নয়। অবাক করা বিষয় হচ্ছে, শিশুগুলোর অভিভাবক সেজে যারা এসেছি‌লেন তারা কেউই শিশুটির মা, বাবা বা ভাই নন। এমনকি পরিবারের সদস্যও না। বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়েই এদের পাচার করা হয়েছিলো।

Advertisement

মানবাধিকার কমিশনের উদ্যোগে এসব শিশুর শিক্ষা নিশ্চিত করছে কারা কর্তৃপক্ষ।

কমিশনার বলেন, “স্বীকার করছি এসব শিশু পাচারের সাথে অবশ্যই মালয়েশিয়ান কোনো চক্র জড়িত। আমরা তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেব। মানবাধিকার কমিশনের অনুরোধে তাদের শিক্ষা নিশ্চিত করা হয়েছে। নির্দিষ্ট সময় অব্দি শিক্ষা নেওয়ার পর তারা বিশেষ সুযোগে এই দেশে কাজ করতে পারবে।”

তবে এই শিশুদের বাংলাদেশে কবে নাগাদ ফেরত পাঠানো হবে এবং এ বিষ‌য়ে মালয়েশিয়া কোনো উদ্যোগ নিয়েছে কিনা তা জানাতে অপরাগতা প্রকাশ করেন মালয়েশিয়া মানবাধিকার কমিশনের  কমিশনার।

এত বড় পাচারের ঘটনা কিভাবে হলো সে ব্যাপারে তদন্ত চালাচ্ছে নানা গোয়েন্দা সংস্থা। সে ব্যাপারেও বিস্তারিত তথ্য জানাতে নিজের অসহায়ত্বের কথা জানান তিনি।