চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মালয়েশিয়ার উপকূলে ভেসে বেড়ানো ২৭০ রোহিঙ্গা আটক

মালয়েশিয়ার কোস্ট গার্ড তাদের উপকূলের কাছ থেকে প্রায় ২৭০ জন রোহিঙ্গা শরণার্থীকে আটক করেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

ওই শরণার্থীরা এক ট্রলারে গত প্রায় দু’মাস ধরে সাগরে ভেসে বেড়াচ্ছিলেন বলেও প্রতিবেদনে জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন

ওই ট্রলারের আরো দু’শ জন যাত্রীর ভাগ্যে কী ঘটেছে সে সম্পর্কে এখনই কোনো তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না।

বিজ্ঞাপন

মানবাধিকার সংস্থাগুলো রোহিঙ্গাবাহী জাহাজগুলোকে নোঙ্গর করার অনুমতি দেয়ার জন্য মালয়েশিয়ার সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

সোমবার গভীর রাতে শরর্ণার্থীদের বহন করা ট্রলারটি ক্ষতিগ্রস্ত হলে তারা অবতরণ করার চেষ্টা করেন। অনেকেই সাগরে লাফ দিয়ে সাঁতার কাটতে থাকেন। এসময় কোস্টগার্ডরা ২৭০ জন রোহিঙ্গাকে আটক করে।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার মালয়েশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, চলতি সপ্তাহে আমাদের পানিসীমায় আটক রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে বাংলাদেশের প্রতি আহ্বান জানাবে মালয়েশিয়া।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের এটা জানা উচিত যে তারা যদি এখানে আসেন, তাহলে এখানে তাদের জায়গা হবে না। যদি দেখা যায় যে আটক রোহিঙ্গারা কক্সবাজার শরণার্থী শিবির থেকে পালিয়েছেন, তাহলে তাদের ফেরত নিতে বাংলাদেশের প্রতি মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আহ্বান জানাবে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়ে রোহিঙ্গাদের অনেকেই প্রতিবেশী বাংলাদেশে পাড়ি জমান। দেশটির কক্সবাজারে প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গাদের আবাসস্থল রোহিঙ্গা শিবির।

মিয়ানমারে নির্যাতনে শিকার রোহিঙ্গাদের কেউ কেউ মালয়েশিয়ায় যাওয়ার চেষ্টা করেছেন।

বিগত বছরগুলোতে চোরাচালানকারীরা কয়েক হাজার রোহিঙ্গাকে অবৈধভাবে মালয়েশিয়ায় নিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে। তবে মালয়েশিয়া এখন কোভিড-১৯ এর কারণ উল্লেখ করে শরণার্থী নৌকাগুলোকে উপকূলে অবতরণ করাতে নিষেধ করছে।